করোনা পরিস্থিতিতে হুজুর সাহেবের মেলা বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রশাসনের

231

হলদিবাড়ি: কয়েকদিন পরই অনুষ্ঠিত হচ্ছে উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী ৭৭তম হুজুর সাহেবের একরামিয়া ইসালে সওয়াব। প্রতিবছর এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে ঘিরে হুজুরের মাজার প্রাঙ্গণে বিশাল মেলার আয়োজন করা হলেও এবছর করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে মেলা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন। এবছর করোনা পরিস্থিতিতে ইসালে সওয়াব ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করাই প্রশাসন ও কমিটির কাছে চ্যালেঞ্জের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদিকে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংকের দিকে তাকিয়ে অনেক বেশি সাবধান শাসকদলও। সবদিক বজায় রেখে ইসালে সওয়াব ধর্মীয় অনুষ্ঠান আয়োজন নিয়ে মঙ্গলবার প্রশাসনিক বৈঠকে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। হলদিবাড়ি পঞ্চায়েত সমিতির হলঘরে আয়োজিত প্রশাসনিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মেখলিগঞ্জের বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান, হলদিবাড়ির বিডিও তাপসী সাহা, একরামিয়া ইসালে সওয়াব কমিটির সম্পাদক লুৎফর রহমান সহ আরও অনেকে।

প্রতিবছর বাংলা ক্যালেন্ডারের ফাল্গুন মাসের ৫ ও ৬ তারিখ উত্তরবঙ্গের ঐতিহ্যবাহী হুজুর সাহেবের বার্ষিক ইসালে সওয়াব ও মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এবছরই করোনা পরিস্থিতির জন্য শর্ত সাপেক্ষে শুধুমাত্র ৬০টি খাবারের দোকান বসার অনুমতি দেবে প্রশাসন। এদিনের বৈঠকে ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে কিভাবে সম্পন্ন করা যায় সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। করোনা সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেই দিকটি বিশেষভাবে নজর দেওয়ার বার্তা দেওয়া হয় প্রশাসনের তরফে। হুজুরের মেলায় আগত পুণ্যার্থীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়াও অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থাও করা হবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশকর্মীর পাশাপাশি সিসি ক্যামেরা থাকবে। এছাড়াও স্বাস্থ্য, দমকল ও বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা ২৪ ঘণ্টা পরিষেবা প্রদানের জন্য প্রস্তুত থাকবে। ভিড় এড়াতে জয়ী সেতুর ওপর দিয়ে সরকারি বাস চলবে। সরকারি বাসের সংখ্যাও বাড়ানো হবে। পথ নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে পূর্ত দপ্তরকে রাস্তা মেরামত করার কথা বলা হয়। কমিটির সম্পাদক লুৎফর রহমান জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতির জন্য ধর্মীয় অনুষ্ঠান হলেও মেলার অনুমতি মেলেনি। হলদিবাড়ি থানার আইসি দেবাশিস বসুর বক্তব্য, নিরাপত্তা ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হবে। অন্য বছরের মতো এবারও সাদা পোশাকের পুলিশ থাকবে।

- Advertisement -