স্ত্রীকে খুন করে থানায় হাজির স্বামী, চাঞ্চল্য

1185

বর্ধমান: মুগুর দিয়ে মাথায় আঘাত করে স্ত্রীকে খুনের অভিযোগে স্বামীকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ধৃতের নাম শেখ জহিরউদ্দিন। পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার সমসপুর গ্রামের মণ্ডল পাড়ায় ধৃতের বাড়ি। স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করে পুলিশ সোমবার জহিরউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে। ওইদিনই পুলিশ ৪৬ বছর বয়সী বধূ আলেয়া বেগমের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। বধূকে প্রাণে মারার ঘটনায় ব্যবহৃত মুগুরটিও পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। সুনির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ মঙ্গলবার ধৃতকে পেশ করা বর্ধমান আদালতে। বিচারক ধৃতকে জেল হেপাজতে পাঠিয়ে ১৫ ডিসেম্বর ফের আদালতের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, বছর ২৫-২৬ আগে সমসপুরের শেখ জহিরউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে হয় আলেয়া বেগমের। বিয়ের পর থেকে নানা কারণে দম্পতির মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। সোমবার সকাল সাড়ে নটা নাগাদ জহিরউদ্দিন নিজে রায়না থানায় হাজির হন। থানার ডিউটি অফিসারকে তিনি বলেন, মুগুরে করে মাথায় আঘাত তিনি তাঁর স্ত্রীকে প্রাণে মেরে দিয়েছেন। এই ঘটনা শোনার পরেই পুলিশ জহিরউদ্দিনের বাড়িতে যায়। বাড়ির শোওয়ার ঘরে ঢুকে পুলিশ দেখে বিছানায় রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে বধূ আলেয়া বেগমের নিথর দেহ। সেখান থেকে পুলিশ বধূর মৃতদেহ উদ্ধার করার পশাপাশি বিছানার রক্তমাখা চাদর ও মুগরটি উদ্ধার করে। এরপর দুপুরে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করে পুলিশ জহিরউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে।

- Advertisement -