স্ত্রী’র পুড়িয়ে মারায় দোষী সাব্যস্ত স্বামী, সাজা শোনাল আদালত

160

আসানসোল: স্ত্রী’র গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে মারার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত স্বামী। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা শোনাল আদালত। শুক্রবার আসানসোল জেলা আদালতের বিচারক সকেট কুমার ঝাঁ এই রায় ঘোষণা করেন। সাজাপ্রাপ্তর নাম দীপক রুইদাস।

এই মামলার সরকারি আইনজীবী তাপস উকিল বলেন, ‘২০০৯ সালে আসানসোলের রানিগঞ্জ থানার চাপুই গ্রামের দীপক রুইদাসের সঙ্গে বীরভূম জেলার খয়রাশোল থানার পাঁচরা গ্রামের সুজাতা রুইদাসে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই সুজাতার উপরে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার শুরু করে স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকেরা। ২০১৩ সালের ১৬ আগস্ট শ্বশুর বাড়িতে আগুনে পুড়ে যায় সুজাতা। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় তাঁকে আসানসোল জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১০ দিন পর সুজাতা সেখানে মারা যান।’

- Advertisement -

মৃত্যুর আগে জেলা হাসপাতালের চিকিৎসকের কাছে সুজাতা জবানবন্দি দিয়ে বলেন, ‘তাঁর স্বামী দীপক রুইদাস গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন লাগিয়ে মেরে ফেলতে চেয়েছিল।’ সুজাতার বাপের বাড়ির তরফে রানিগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। এরপর পুলিশ দীপককে গ্রেপ্তার করে। সেই সঙ্গে সুজাতার দুই দেওর, দুই জা ও স্বামীর প্রথম পক্ষের মৃত স্ত্রী’র এক সন্তানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির নির্দিষ্ট ধারায় মামলা করা হয়।

মামলা চলাকালীন আসানসোল আদালতে বিচারকের সামনে ২২ জন সাক্ষ্য দেয়। সেই সাক্ষ্যদান ও বিভিন্ন তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বিচারক খুন ও সহ বিভিন্ন ধারায় দীপককে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন বিচারক। শুক্রবার দীপককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড নির্দেশ দেন বিচারক। পাশাপাশি বাকিদের প্রমানের অভাবে বেকসুর খালাস করার নির্দেশ দেন বিচারক।