এজেস বোলে ভুবিকে খুঁজলেন সানি

সাদাম্পটন : তিনি নেই। তাঁর থাকার কথাও ছিল না। অথচ তাঁকেই খুঁজলেন সুনীল গাভাসকার।

ভারত বনাম নিউজিল্যান্ডের ফাইনালে ভুবনেশ্বর কুমারের মতো সুইং বোলার টিম ইন্ডিয়ায় থাকলে ভালো হত। গাভাসকারের হাতে ক্ষমতা থাকলে তিনি দলের চতুর্থ পেসার হিসেবে ভুবিকে খেলাতেন। আবার অশ্বীন-জাদেজার মতো বিশ্বমানের স্পিন জুটির উপরও আস্থা রাখতেন। কারণ, কিউযিরা বিশ্বমানের স্পিন আক্রমণের বিরুদ্ধে কোনওদিনও স্বচ্ছন্দ নন। আজ ধারাভাষ্যের মাঝে আচমকাই ভুবির প্রসঙ্গ টেনে সানি বলেন, শুধুমাত্র এজেস বোল টেস্টের জন্য ভুবির মতো সুইং বোলারের কথা ভাবাই যেতে পারত। ইংলিশ সামারের শুরুতে সারাদিন ধরে বল নড়াচড়া করে। ভুবির মতো সুইং বোলার যার সুযোগ নিতে পারত।

- Advertisement -

২০১৮ সালে জোহানেসবার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে শেষ টেস্ট খেলেছেন ভুবনেশ্বর। মাঝের সময়ে চোটের কারণে দলের বাইরেই কাটিয়েছেন তিনি। এহেন ভুবির কথা কেন ভাবলেন সানি? কিংবদন্তি ভারতীয় ওপেনার এব্যাপারে বলেন, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের জন্য নয়, এজেস বোলের ফাইনালে ভুবি অভাবের কথা মনে হচ্ছিল। ভুবনেশ্বরকে খেলাতে হলে ভারতকে চার পেসারের স্ট্র‌্যাটেজিতে যেতে হত। নয়তো সামি-ইশান্ত-বুমরাহদের মধ্যে কাউকে বাদ দিতে হত। দুই স্পিনার খেলানোর স্ট্র‌্যাটেজির বদল করতে হত। গাভাসকার অবশ্য এসব নিয়ে তাঁর ভাবনার কথা স্পষ্ট করেননি।

এদিন এজেস বোলে অবশ্য পুরোদিনই খেলা হল। ভারতের ২১৭ রানের জবাবে ২৪৯ রানে কিউয়িদের প্রথম ইনিংস শেষ হয়। বলের মতো ব্যাট হাতেও ভারতকে ভোগালেন কইল জেমিসন (২১), টিম সাউদি (৩০)। মহম্মদ সামি একাই নিলেন ৪ উইকেট, ইশান্ত শর্মা ৩টি। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারতের স্কোর ৬৪২। ফিরে গিয়েছেন রোহিত শর্মা (৩০) ও শুভমান গিল (৮)। ব্যাট করছেন চেতেশ্বর পূজারা (১২) ও বিরাট কোহলি (৮)। দুটি উইকেটই নিয়েছেন সাউদি।