নয়াদিল্লি, ১৪ ফেব্রুয়ারিঃ পুলওয়ামার অবন্তিপুরায় ভয়াবহ বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে জইশ-ই-মহম্মদ। জানা গিয়েছে সেই আত্মঘাতী সন্ত্রাসবাদীর পরিচয়। যার কারণে শহিদ হলেন ৪০ জন জওয়ান।
জানা গিয়েছে, ৩৫০ কেজি বিস্ফোরক বোঝাই যে গাড়িটি ৪০ জন সিআরপিএফ বোঝাই জওয়ানদের বাসে এসে ধাক্কা মারে, সেই গাড়িটি চালাচ্ছিল আদিল আহমেদ দার নামে এক জইশ সন্ত্রাসবাদী। তাকে ‘আদিল আহমেদ গাড়ি টকরানেওয়ালা’ এবং ‘গুন্ডিবাগের ওয়াকাস কমান্ডো’ পরিচয়েও চিনত জইশ সদস্যরা।
ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া গিয়েছে আদিলের হাতেলেখা চিরকুটের অংশ। তাতে লেখা রয়েছে, ‘গিন রখা হ্যায় অপনে লহুঁ কা হর কতরা হামনে, না বখশে হামারে শহিদ হামেঁ, জো হামনে তুমকো এক-এক কতরা গিনওয়ায়া নহিঁ- জাহিদ বিন তলহা…’।
২০১৮ সালে কাকাপোরার বাসিন্দা আদিল সন্ত্রাসবাদী দলে নাম লেখায়। বিস্ফোরণের পরে তার ছবি ও ভিডিয়ো ফুটেজ প্রকাশ করেছে জইশ। ছবিতে দেখা গিয়েছে, জইশ-ই-মহম্মদের পতাকার নীচে একাধিক আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে এই তরুণ।
তথ্য বলছে, গত কয়েক বছরে উপত্যকা থেকে জইশ-ই-মহম্মদের উপস্থিতি প্রায় নিশ্চিহ্ন করতে সফল হয়েছিল প্রশাসন। তা সত্ত্বেও এত বিশাল আকারের সন্ত্রাসবাদী হামলা গোয়েন্দা বাহিনীর অগোচরে কী ভাবে সংগঠিত হল, তাই নিয়ে উদ্বিগ্ন সরকার।