চাকরির জন্য টাকা চাইলে পুলিশকে ধরিয়ে দিন: অনুব্রত মণ্ডল

406

রামপুরহাট: ‘প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেউ চাকরির জন্য টাকা চাইলে দেবেন না। বাড়িতে কেউ চাইতে গেলে তাকে পুলিশে ধরিয়ে দেন’। বুধবার বীরভূমের মুরারই ২ নম্বর ব্লকের পাইকরে সাংবাদিকদের একথা বলেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। এদিন পাইকরের মাঠে ছিল তৃণমূলের সভা। সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন বোলপুরের সাংসদ অসিত মাল, দলের জেলা সহ সভাপতি সৈয়দ সিরাজ জিম্মি ও দুই বিধায়ক।

সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে অনুব্রত বলেন, ‘রাজ্যে সাড়ে ১৬ হাজার বেকারের চাকরি হবে। কেন্দ্র সরকার ভারতবর্ষকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।’

- Advertisement -

মিম প্রসঙ্গে অনুব্রত বলেন, ‘বিজেপি আসাউদ্দিন ওয়েসি নামে এক দালালকে জোগাড় করেছে মুসলিম সমাজের ভোট কাটার জন্য। ওই দলের সঙ্গে তাদের চারশো হাজার কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। কিন্তু বাংলার মুসলিমরা বোকা নয়। ওরা বিহারের মতো ভুল করে মিমকে ভোট দেবে না। মিমি এনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারানো যাবে না। রাজ্যের উন্নয়ন আটকাতে প্রধানমন্ত্রী টাকা দিচ্ছে না। রাজ্যের ৮২ হাজার কোটি টাকা কেন্দ্রের কাছে পাওনা রয়েছে দিচ্ছে না। ওই টাকা দিলে রাজ্যে আরও উন্নয়ন্ন করা যেত। তবুও মুখ্যমন্ত্রী উন্নয়ন করে চলেছে।’

এরপরেই অনুব্রত বলেন, ‘বিজেপি চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু পরে তা প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাড়ে ষোলো হাজার প্রাথমিকে চাকরির কথা ঘোষণা করেছেন। চাকরির জন্য কাউকে টাকা দেবেন না। কেউ টাকা চাউতে গেলে পুলিশকে ধরিয়ে দেবেন।’

বিজেপির জেলা সভাপতি ধ্রুব সাহা বলেন, ‘এই সরকারের আমলে আদালতও চাকরি নিয়ে তিরস্কার করছে। প্যানেল বাতিল করছে। এদের মুখে ঘুষ না নেওয়ার কথা মানায় না। রাজ্যের মানুষ জানে এই সরকার কাত্মানির সরকার।’