অর্ণবকে হাতিয়ার করে মোদিকে বিঁধলেন ইমরান

648

ইসলামাবাদ: ভারতীয় বায়ুসেনার বালাকোট হামলা নিয়ে ফের সরব হলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সোমবার একের পর এক টুইটে তাঁর দাবি, বালাকোটে ভারতের অভিযান ছিল পুরোপুরি ভুয়ো, লোক দেখানো নাটক। দেশের নির্বাচনে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন ফ্যাসিবাদী বিজেপি সরকার এই চিত্রনাট্যটি রচনা করেছিল।

সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামী এবং টিআরপি মামলায় ধৃত বিএআরসি-র প্রাক্তন সিইও পার্থ দাশগুপ্তের কথোপকথনে বালাকোট প্রসঙ্গকে হাতিয়ার করে এদিন নরেন্দ্র মোদিকে বেঁধেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমরান লেখেন, ’২০১৯-এ রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় বলেছিলাম,  ফ্যাসিবাদী মোদি সরকার বালাকোটের ঘটনাকে ব্যবহার করে সংসদীয় নির্বাচনে ফায়দা তুলেছে। যুদ্ধে প্ররোচনা জোগানো তাদের এক সাংবাদিকের কথোপথন গণমাধ্যমে ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর সেটা আরও স্পষ্ট। ওই বার্তালাপে মোদি সরকার এবং ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের মধ্যের অসাধু যোগসূত্রও এখন দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে।’

- Advertisement -

সন্ত্রাসবাদকে উসকে দেওয়ার জন্য ভারত বরাবর পাকিস্তানকে দায়ী করেছে। এদিন তার পালটা ইমরান লেখেন, ’পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদী কাজকর্মে মদত দেওয়া হচ্ছে। ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকা জম্মু ও কাশ্মীর অংশেও ক্ষমতার অপব্যবহার হচ্ছে। সন্ত্রাসবাদের জন্য এতদিন ভারত সারা বিশ্বের সামনে আমাদের দায়ী করেছে। কিন্তু বাস্তবটা যে উলটো, সেটা এখন বোঝা যাচ্ছে। ইমরানের আরও বক্তব্য, মোদি সরকারের ভুল নীতির জন্য পরমাণু শক্তিধর পড়শি দুটি দেশের মধ্যে সংঘাত ক্রমশ তীব্র হয়ে উঠেছে, যা গোটা বিশ্বের পক্ষেই বিপজ্জনক।’

অর্ণব গোস্বামী বিতর্কে প্রশ্ন তুলেছে বিজেপির একদা শরিক শিবসেনাও। সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দাদের গোপন তথ্য অর্ণবের কাছে কী করে গেল, তা নিয়ে দলীয় মুখপত্র সামনায় তারা তদন্ত ও কড়া পদক্ষেপের দাবি তুলেছে। শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘দেশের জাতীয় নিরাপত্তাকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছেন অর্ণব। বালাকোটের তথ্য তাঁর কাছে এল কী করে, তা নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত।’ তাঁর প্রশ্ন, ’এব্যাপারে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে জবাবদিহি করতে হবে। সেনাবাহিনীর জন্যও বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগের। আমরা জানতে চাই, অর্ণবকে কি কোর্ট মার্শাল করা হবে?’