শর্ত মানলেই আলোচনায় বসবে ইমরান! কাশ্মীর ইস্যুতে তরজা দুই দেশের

172

নয়াদিল্লি: জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়ে ইতিমধ্যেই নয়া দিল্লির বুকে এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন   প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে  ছিলেন কাশ্নীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সহ একাধিক তাবড় নেতারা। সেখানে উঠে আসে কাশ্মীরের উন্নয়নের প্রসঙ্গ। বৈঠকের আগে থেকেই সেখানে ৩৭০ ধারা নিয়ে বহু জল্পনা ছিল। এদিকে, এরপরই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সাফ জানিয়েছেন যে যতক্ষণ না পর্যন্ত ভারত কাশ্মীর নিয়ে নিজের সিদ্ধন্ত বদল করছে, ততক্ষণ দিল্লি-ইসলামাবাদ বৈঠক হবে না।

কয়েকদিন আগে  ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের ঘটনা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে একটি ‘ব্যাক চ্যানেলে’ আলোচনা শুরু হয়। সেই ঘটনার পর এদিন পাকিস্তানের সংসদে বক্তব্য রাখেন ইমরান খান। তিনি সাফ জানান যে ২০১৯ সালের ৫ অগাস্ট ভারত কাশ্মীরকে নিয়ে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা বদল না করলে দুই দেশের কোনও রকমের আলোচনা হবে না। নিজের বিতর্কিত মন্তব্যের থেকে দেশবাসীকে আড়াল রাখার জন্যই এই কাশ্মীর কার্ড বলে মনে করছেন রাজনীতিবিদরা।

- Advertisement -

তবে ইমিরান খানের বক্তব্য সাফ হয়েছে পাকিস্তানের বর্তমান পদক্ষেপ। কিন্তু ভারত তার সমস্ত প্রিবেশির সঙ্গেই শান্তিপূর্ণ ভাবে সুসম্পর্ক রাখতে চাই৷ তবে কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সিধান্ত না বদলালে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক কতটা ভালো হবে তা নিয়ে প্রশ্ন জেগেছে একাধিক মহলে। অন্যদিকে জম্মুতে ড্রোন আক্রমণের পর  ইমরানের মন্তব্যকেও হালকা ভাবে নিতে নারাজ রাজনৈতিক মহল।