পণের টাকা না দেওয়ায় গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

171

রায়গঞ্জ, ৯ জুনঃ  পণের টাকা না দেওয়ায় গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে ইটাহার থানার পার্বতীপুর এলাকার শ্রীধরপুর গ্রামে। মৃতার নাম সুমি মুর্মু (২০)। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত সাতটা নাগাদ সুমিকে বেধড়ক মারধর করে তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এরপর তাঁকে রায়গঞ্জ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। এরপর শুক্রবার সকালে মৃত্যু হয় সুমির। ঘটনার পর থেকেই পলাতক শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এদিকে শনিবার দুপুরে ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে সুমির মৃতদেহ তুলে দেয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।  মৃতার ভাই সুকনাথ মুর্মুর জানান, ‘একবছর আগে সুমি মুর্মুর সঙ্গে ইটাহার থানার শ্রীধরপুর গ্রামের বাসিন্দা সুনীল চড়ের বিয়ে হয়। বিয়ের দু-তিন মাস পর টাকার জন্য সুমির শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁর উপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতে থাকে। পণের টাকা না দেওয়াতেই আমার বোনকে খুন করেছে তার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে সুনীল মদ্যপ অবস্থায় বাঁশ, লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করে সুমিকে। মারধরের ফলে সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন সুমি। গৃহবধূকে খুনের ঘটনায় রায়গঞ্জ থানার তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

- Advertisement -

সংবাদদাতাঃ  বিশ্বজিৎ সরকার