সুযোগের সৎ ব্যবহার, রাজ্যসভায় দু’দিনে ১৫ বিল পাশ মোদি সরকারের

669

নয়াদিল্লি: একেই হয়তো বলে সুযোগের সৎ ব্যবহার! যার ইঙ্গিত ছিল আগামই। তবে সংসদের বাদল অধিবেশনে কড়ায়গণ্ডায় মিলে গেল সব হিসাব। বিরোধী পক্ষের অনুপস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে শেষ দু’দিনে কোনও বিতর্ক ছাড়াই রাজ্যসভায় ১৫টি বিল পাশ করিয়ে নিল কেন্দ্রীয় সরকার।

‘কৃষিপণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন বিল’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দামে সুরক্ষা ও কৃষক ক্ষমতায়ন এবং চুক্তি সংক্রান্ত বিল’ রাজ্যসভায় ধ্বনিভোটে পাশ করানোর বিরোধিতা করে সোমবার সাসপেন্ড হন কংগ্রেস, তৃণমূল, সিপিএম এবং আপের মোট ৮ জন সাংসদ। এরপরই রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নায়ডুর এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে একাধিক বিরোধী দল অধিবেশন বয়কট করে। পাশাপাশি, মঙ্গলবার রাজ্যসভার আট সাসপেন্ড হওয়া সাংসদের সমর্থনে উপবাসও পালন করলেন রাজ্যসভার বর্ষীয়ান সাংসদ তথা এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার।

- Advertisement -

আর বিরোধীদের এই পদক্ষেপের পরেই সক্রিয় হয়ে ওঠে কেন্দ্র। বিরোধীশূন্য রাজ্যসভায় মঙ্গলবার ৭টি এবং বুধবার ৮টি বিল পাশ করিয়ে নেওয়া হয়। এর পরেই করোনাকালে বাদল অধিবেশনের সমাপ্তি ঘটে। অনির্দিষ্টকালের জন্য অধিবেশন স্থগিত করে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ১৪ সেপ্টেম্বর কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১৮ দিনের জন্য সংসদের দু’কক্ষের বাদল অধিবেশন শুরু হয়েছিল। শুরুর দিনই ২৫ জন সাংসদের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তারপরও বিধি মেনে চলছিল অধিবেশন। কিন্তু এর পরে আরও ২ সাংসদ করোনাক্রান্ত বলে রিপোর্ট আসে। জোড়া কৃষি বিল নিয়ে রবিবার উত্তাল হয় রাজ্যসভা। অসংসদীয় আচরণের অভিযোগে আট সাংসদকে সাসপেন্ড করা হয়।