কমিশনের নজরে দাগী-পলাতক আসামীরা, নাম বাদ পড়ছে ভোটার তালিকা থেকে

140

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: নির্বাচন কমিশনের নজরে এবার দাগী আসামীরা। আদালতের একাধিকবার সমন জারির পরেও হাজিরায় গরহাজির আসামীদের নাম বাদ পড়তে চলেছে ভোটার তালিকা থেকে। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তারা এবার ভোট দিতে পারবেন না। ইতিমধ্যেই আদালতের নির্দেশে জেলা পুলিশ প্রশাসন, জেলা নির্বাচনী আধিকারিক তথা জেলা শাসকের কাছে এই সংক্রান্ত বিস্তারিত রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

প্রশাসন সূত্রে খবর, বিগত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে কয়েকজনের নামে আদালত সমন জারি করে একাধিক সময়। সমন জারির পরেও যারা এখনও পলাতক  তাদের বিরুদ্ধে আদালতের জারি করা ওয়ারেন্ট অফ অ্যারেস্ট এ্যান্ড পোক্লামেশন এ্যাটাচমেন্টের তালিকা তৈরি করে জেলা পুলিশ প্রশাসনের তরফে জেলা নির্বাচনী আধিকারিককে পাঠানো হয়েছে। এই জেলায় প্রায় সাড়ে তিন হাজার আসামীর নাম তালিকাভুক্ত ছিল। এদের মধ্যে প্রায় সাড়ে ছয়শো অভিযুক্ত যারা এখনও পলাতক তাদের বারবার সমন জারি করা সত্বেও আদালতে আত্মসমর্পণ করেনি। অভিযোগ এই অভিযুক্তরা গা ঢাকা দিয়ে লুকিয়ে বেড়াচ্ছে। পুলিশ এদের টিকির নাগাল পাচ্ছে না। ইতিমধ্যে জেলার ৪১ জন  অভিযুক্তের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে বলে রায়গঞ্জ পুলিশ জেলার প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

আইনজীবী আশিস সরকার বলেন, ‘এই ব্যবস্থা অন্য সময়েও বহাল থাকলেও নির্বাচন কমিশন শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যেই এই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্ত আসামীরা যাতে নির্বাচনের সময় গন্ডোগোল বা ঝামেলা পাকাতে না পারে সে কারনেই কমিশন বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে থাকে।’

রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন জামিন অযোগ্য মামলায় যারা অভিযুক্ত তাদের বিষয়টা দেখে আমরা চার মাস ধরে কাজ করে যাচ্ছি। প্রায় সাড়ে তিন হাজার আসামীর মধ্যে কেউ ধরা পড়েছে, আবার কেউ গ্রেপ্তার হয়েছে। ৬৩০ জনের মধ্যে কিছু লোক আছে যারা এলাকা ছেড়ে দিয়েছে।ইতিমধ্যে ৪১ জনের নাম আমরা জেলা প্রশাসনের কাছে পাঠিয়েছি যাতে তাদের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়।’