সংকট সামলাতে অক্সিজেন বন্ধ করাতেই যোগীরাজ্যে মৃত্যু ২২ রোগীর, ভাইরাল ভিডিওতে দাবি

104

লখনউ: হাসপাতালে ‘ভুয়ো মহড়া’ করা হয়েছিল বলেই মৃত্যু হয়েছিল ২২ জন কোভিড রোগীর। এমনই একটি ভাইরাল অডিও ক্লিপকে নিয়ে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য। অডিওতে শোনা যাচ্ছে  ওই বেসরকারি কোভিড হাসপাতালের মালিক অরিঞ্জয় জৈনের গলা। উত্তরপ্রদেশের আগ্রায় ২৭ এপ্রিলের ওই ঘটনার পর যথারীতি ত্রাহি ত্রাহি রব পড়েছিল দেশজুড়ে। করোনা কেড়ে নিয়েছিল একাধিক মানুষের প্রাণ। অন্যদিকে অক্সিজেনের অভাবেও মানুষের মৃত্যু হচ্ছিল। আর তার মধ্যে মক ড্রিলের নাম দিয়ে ৫ মিনিট ধরে বন্ধ করে দেওয়া হয় হাসপাতালে অক্সিজেন সরবারহ। যে কারণে প্রাণ যায় ২২ জন রোগীর। তবে ২৮ এপ্রিলের ওই অডিও ভাইরাল হতেই যথারীতি হাসপাতালের কতৃপক্ষের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

- Advertisement -

যোগীর রাজ্যের এই ঘটনা সামনে আসতেই ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন কঙ্গগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। এই বিষয়ে হাসপাতালের মালিক অরিঞ্জয় জৈন বলেন, ‘ আমাদের জানানো হয়েছিল যে, মুখ্যমন্ত্রীও অক্সিজেন জোগাড় করতে পারছেন না। ফলে রোগীদের হাসপাতাল ছাড়তে হবে বলে নির্দেশ এসেছিল। রোগীদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমরা অনুরোধ করি। কিন্তু এই প্রস্তাবে অনেকেইও রাজি হননি। তখন আমরা একটা মক ড্রিল করার সিধান্তনি। আর সেইমত সকাল ৭টায় ৫ মিনিটের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয় অক্সিজেন। ৫ মিনিটের জন্য হাসপাতালে অক্সিজেন বন্ধ করা হয়েছিল। ২২ জন এমন রোগীকে চিহ্নিত করা গিয়েছে, যাঁরা মারা যেতে পারেন। ওঁদের দেহ নীল হয়ে যাচ্ছিল।‘

তবে এই অভিযোগকে পুরোপুরিভাবে নাকচ করেছেন জেলাশাসক প্রভু এন সিংহ। তার মতে সেদিন ৪৮ ঘন্টায় ৭ জন করোনায় মারা গেলেও অক্সিজেনের অভাবে কেউ মারা যাননি। অক্সিজেনের অভাবে কোভিড রোগীদের মৃত্যুর অভিযোগ উঠতেই বিজেপি প্রশাসনকে আক্রমণ করেছেন রাহুল গান্ধী। তিনি টুইট করেছে, ‘বিজেপি শাসনে অক্সিজেন এবং মানবিকতা, দুইয়েরই নিদারুণ অভাব রয়েছে।’