অমিল বিধবা ভাতা, দুই মেয়েকে নিয়ে বিপাকে অসুস্থ বৃদ্ধা

122

রায়গঞ্জ: স্বামীকে হারিয়ে দুই মেয়েকে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন অসুস্থ এক আদিবাসী বৃদ্ধা। পরিবারের আয় একপ্রকার নেই বললেই চলে। কিন্তু বিধবা ভাতার জন্। বিডিওর দ্বারস্থ হলেও কোনও লাভ হয়নি। মিলছে না পঞ্চায়েত থেকে কোনপ্রকার সরকারি সাহায্য। পরিবারের চরম অভাবের ফলে দুই মেয়ের পড়াশোনা প্রায় বন্ধের মুখে। রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাসের পাশেই বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েতের উত্তর সোহারইয়ের বাসিন্দা বৃদ্ধা বাহমনি হেমরম। দুই মেয়ে বাসন্তী বাসরা ও ঝুমা বাসরা। স্বামী মারা যাওয়ার পর একমাত্র ভরসা ছিল ছেলে। কিন্ত সে পরিবার নিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ায় দুই বেলা দুই মুঠো ভাত জোগাড় করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে বৃদ্ধাকে। পায়ে গোদ হয়ে ফুলে যাওয়ায় চলাফেরা করতে পারেন না, কাজ করার ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলেছেন। তাঁদের অভিযোগ, বিধবা ভাতার জন্য অনেক ছোটাছুটি করলেও আজ অবধি ভাতা মেলেনি। পঞ্চায়েত থেকে সেভাবে সাহায্য মিলছে না।

বাহমনি হেমরম বলেন, ‘সরকারি সাহায্য না পেলে মরতে হবে।’ স্থানীয় সোহারই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহ শিক্ষক শংকর সরকার বলেন, ‘গতকাল এলাকায় সার্ভে করতে গিয়ে এই পরিবারের অবস্থার কথা জানতে পারি। এই অবস্থায় তাদের সরকারি সাহায্য খুবই দরকার।’ ‘বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য প্রধান মুর্মু পরিবারটির পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।’

- Advertisement -