রায়গঞ্জ আসনে নির্দল প্রার্থী মহিলা অটোচালক

72

রায়গঞ্জ: অটো চালিয়ে সংসার চলে। কোনও দিন আয় হয় ২০০, আবার কোনও দিন ৩০০। এই অভাবকে দূরে সরিয়ে রেখে হাইভোল্টেজ রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের হেভিওয়েট প্রার্থীদের সঙ্গে নির্দল প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনি লড়াইয়ের ময়দানে নেমেছেন রায়গঞ্জের মহিলা অটোরিকশা চালক মঞ্জুদাস মন্ডল। উদ্দেশ্যে একটাই জয়ী হলে বিধানসভায় গরীব মানুষের দুঃখ যন্ত্রণার কথা তুলে ধরবেন। অন্য প্রার্থীদের মত প্রচার করার মত নেই লোকবল, নেই অর্থবল। তাই নিজের অটোরিকশাতেই প্রচারের ব্যানার লাগিয়ে যাত্রী পরিষেবা দেওয়ার পাশাপাশি প্রচারও চালাচ্ছেন মঞ্জু। রায়গঞ্জের রবীন্দ্রপল্লীর বাসিন্দা মঞ্জু দাস ওরফে মনা নির্দল প্রার্থী হিসেবে দূরবীন চিহ্নে ভোটে দাঁড়িয়েছেন।

মঞ্জু দেবী ভোটারদের কাছে আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘গরীব মানুষদের প্রতিনিধিত্ব করতেই বিধানসভায় যেতে চান। তাই তাকে যেন বিপুল ভোটে জয়ী করেন। আগামী ২২ এপ্রিল রায়গঞ্জ সহ উত্তর দিনাজপুর জেলার ৯টি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট। দীর্ঘদিন ধরে কেন্দ্রটি কংগ্রেসের দখলে রয়েছে। অনেক চেষ্টা করেও বিরোধীরা কেন্দ্রটি দখলে নিতে পারছে না। তাই এবার প্রথম থেকে দখলে মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিজেপি ও তৃণমূল। তৃণমূল কংগ্রেস, সংযুক্ত মোর্চার বাম-কংগ্রেস জোট এবং বিজেপি প্রার্থী ছাড়াও রয়েছেন অন্যান্য রাজনৈতিক দল ও নির্দল প্রার্থী সহ মোট ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এই কেন্দ্রে।’

- Advertisement -

মঞ্জুদেবী জানান, আমার মতো গরীব মানুষের কথা বলার কেউ নেই। তাই গরীব মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করার লক্ষ্যেই বিধানসভায় প্রতিনিধিত্ব করতে চাই। দীর্ঘদিন ধরে রায়গঞ্জ বিধানসভায় বহু রাজনৈতিক দলের নেতা মন্ত্রীরা প্রতিনিধিত্ব করেছেন কিন্তু কোনও উন্নয়ন হয়নি রায়গঞ্জের। রায়গঞ্জে আজ পর্যন্ত হয়নি মহিলা কলেজ, হয়নি এইমস। ফলে গরীব মানুষেরা সবদিক থেকে বঞ্চিত। তিনি আরও জানান, এই অসম যুদ্ধে লড়াইটা যে সহজ নয় তা বুঝতে পেরেও তিনি ভোট যুদ্ধ থেকে সরে আসতে রাজি নন। তবে শেষ পর্যন্ত তৃণমূলের খেলা হবে, সিপিএমের টুম্পা সোনা ও কংগ্রেসের জয় হো এবং বিজেপির সোনার বাংলা স্লোগানের বিপরীতে দাঁড়িয়ে কতটা ছাপ ফেলতে পারবেন গরীবের বন্ধু মঞ্জু দাস এখন সেটাই দেখার।