গোলাপি টেস্টে হাতেখড়ির পথে মিতালিরা

কারারা : এ যেন শূন্য থেকে শুরু।

আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে নামের পাশে দুশোর বেশি একদিনের ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা। টেস্ট ফর্ম্যাটেও ম্যাচ খেলেছেন দশের বেশি। তবে বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথমবার দিনরাতের টেস্ট খেলার আগে মিতালি রাজের চোখেমুখে শিক্ষানবীশী ছাপ স্পষ্ট।

- Advertisement -

অধিনায়কের মতোই অবস্থা গোটা দলের। গোলাপি বলে টেস্ট খেলার আগে প্রস্তুতির জন্য গোটা ভারতীয় দল সুযোগ পেয়েছে মাত্র দুই দিন। মঙ্গলবার দিনেরবেলায় অনুশীলনের পর বুধবার রাতে প্রস্তুতি সারেন হরমনপ্রীত কৌর, স্মৃতি মান্ধানারা। একদিকে প্রস্তুতির অভাব, অপরদিকে পিঙ্ক বলের চরিত্র দুই বিষয় নিয়ে মিতালির কপালে চিন্তার ভাঁজ। ঐতিহাসিক ক্ষণের সামনে দাাড়িয়ে থাকা ভারত অধিনায়ক বলেছেন, সত্যি বলতে গোলাপি বলে খেলার কোনও অভিজ্ঞতা আমার নেই। প্রথমবার এই অভিজ্ঞতা নিতে চলেছি। সূর্যাস্তের পর গোলাপি বলে খেলা বেশ চ্যালেঞ্জিং। বিষয়টি নিয়ে আমার কৌতূহল রয়েছে। সেই অভিজ্ঞতার স্বাদ নিতে চাই।

সাত বছর পর টেস্টের আঙিনায় প্রত্যাবর্তন ঘটেছে ভারতীয় মহিলা দলের। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেই টেস্টে ড্র করেন মিতালিরা। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেও কঠিন লড়াই তুলে ধরতে মরিয়া ভারতীয় দল। ২০০৬ সালে শেষবার টেস্টে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। সেই ম্যাচে খেলেছিলেন মিতালি। ১৫ বছর পর সেই মঞ্চে লড়াই আরও কঠিন, মানছেন ভারত অধিনায়ক। একদিনের সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারলেও শেষ ম্যাচ জিতে ক্যাঙারুবাহিনীর ২৬ ম্যাচের জয়রথ থামিয়েছে ভারত। সেটাই বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে মিতালিকে।

জয়ে ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী অজি শিবিরও। ভারতের বিরুদ্ধে গোলাপি বলে টেস্ট এই ফর্ম্যাটে মহিলা ক্রিকেটকে নতুন দিশা দেখাবে বলে মনে করেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মেগ ল্যানিং।