ফের উত্তপ্ত প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা, চিনের কোণঠাসার ‘যোগ্য’ জবাব ভারতের

932

নয়াদিল্লি: ৪৫ বছর আগের ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি। এই প্রথম পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত-চিন সেনার মধ্যে চলল গুলি। গত তিনমাস ধরে লাদাখের প্যাংগং লেক সংলগ্ন সীমান্তবর্তী এলাকায় সংঘাতের আবহ তৈরি হয়েছে ভারত ও চিনা সেনার মধ্যে।

সোমবার গভীর রাতে পরিস্থিতি ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। চিন দাবি করে, টহলদারির সময় দুই বাহিনী মুখোমুখি হয়। তখন হঠাৎই গুলি চালায় ভারতীয় সেনা। আত্মরক্ষায় পাল্টা ব্যবস্থা নেয় লালফৌজ।

- Advertisement -

চিনের অন্যতম সংবাদ মাধ্যম তরফে জানানো হয়, সোমবার গভীর রাতে দাবি করেছে, শেনপাও পাহাড়ের কাছে প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ কূলে ভারতীয় সেনা ফের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করেছে। লাল ফৌজের পশ্চিম থিয়েটার কম্যান্ডের মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করেছে ওই সংবাদপত্র। শুধু তাই নয়, নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে ভারত গুলিও চালিয়েছে বলে দাবি তাদের। এই পরিস্থিতিতে চিন নাকি পাল্টা জবাবও দিয়েছে, তবে তা ঠিক কী, তার অভিঘাতই বা কী, গোটা ঘটনায় এখন পরিস্থিতি ঠিক কেমন– তার বিস্তারিত বিবরণ কোনও তরফেই মেলেনি।

অন্যদিকে, পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় গুলি চলার ঘটনায় চিনের যাবতীয় অভিযোগকে এদিন এককথায় খারিজ করেছে ভারত। দেশের সেনার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, ভারত কোনও অবস্থাতেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পার করেনি বা গুলি চালায়নি। ভারতের তরফে এও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়, বিনা প্ররোচনায় কখনই এধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করে না ভারত। এধরণের পদক্ষেপ ভারতের সংস্কৃতি বিরুদ্ধে।

ভারতীয় সেনার তরফে আরও জানানো হয়, সোমবার গভীর রাতে ফরওয়ার্ড পোস্টের কাছাকাছি চলে আসে চিনা ফৌজ। নিজেদের ফৌজকে ফরওয়ার্ড পোস্টের কাছ থেকে সরাতে তখন শূন্যে গুলি চালায় চিনা সেনা। একই সঙ্গে ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরোয়নি ভারতীয় সেনা। চিনের দিক থেকে লাগাতার প্ররোচনা সত্ত্বেও ভারত সংযমী মনোভাবই দেখিয়েছে বলে দাবি দিল্লির। গোটা বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই মস্কোতে রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বৈঠক হবে বলে ঠিক হয়। তার আগেই ফের লাদাখের প্যাংগংয়ের সীমান্তবর্তী এলাকা উত্তপ্ত হয়ে উঠলো। সেই মে মাস থেকেই লাদাখে চলছে দুই পক্ষের সংঘর্ষ। গালওয়ানে ঘটে গিয়েছে রক্তক্ষয়ী লড়াই, যাতে ইতিমধ্যেই ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত। এরপরে আলোচনা ও কূটনৈতিক চাপে পরিস্থিতি একটু আয়ত্বে এলেও ফের নতুন করে দানা বাঁধতে শুরু করেছে অশান্তি।

প্রসঙ্গত, গত মাসের শেষ থেকেই লাদাখের প্যাংগং লেকের দক্ষিণ অংশে নতুন করে সমস্যা শুরু হয়েছে। তবে এবার আর ছেড়ে কথা বলেনি ভারতও। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় প্যাংগং লেকের উত্তরে ফিঙ্গার ৪-এর একটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকা দখল করে নেয় ভারতীয় সেনা। ফলে ওই অঞ্চলটি এখন ভারতের নিয়ন্ত্রণে। গত জুন থেকে এখনও পর্যন্ত এই প্রথম সেনা ও স্পেশাল ফ্রন্টিয়ার ফোর্স ফিঙ্গার ৪-এ এতবড় সাফল্য পেল।