পিচ ইস্যুতে সমালোচকদের পাল্টা রোহিতের

আহমেদাবাদ : পিঙ্ক টেস্টের অভিজ্ঞতা মাত্র একটি। তাও সেটা ইডেন গার্ডেন্সে ২০১৯ সালের নভেম্বরে। মাঝের সময়ে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে টিম ইন্ডিয়া আরও একটি দিন-রাতের টেস্ট খেলেছে। ৩৬ রানে অলআউটের লজ্জায় সেই ম্যাচে ডুবতে হয়েছিল ভারতকে। যদিও চোটের কারণে সেই ম্যাচে খেলা হয়নি রোহিত শর্মার।

গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্টের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা কম হলেও ধারণা স্পষ্ট রোহিত শর্মার। সেই কারণে আজ দুপুরের দিকে সতীর্থদের সঙ্গে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামের নেটে দীর্ঘসময় ব্যাটিং চর্চা করেছেন তিনি। জশপ্রীত বুমরাহ, ইশান্ত শর্মা, মহম্মদ সিরাজদের গোলাপি বলে পেস-সুইংয়ের বিরুদ্ধে নিজের স্কিল ঝালিয়ে নিয়েছেন। তিনি একা নন, গোলাপি বলে আজ টিম ইন্ডিয়ার বিশেষ ব্যাটিং অনুশীলনে বিরাট কোহলি, আজিঙ্কা রাহানে, শুভমান গিলরাও একই কাজ করেছেন। জেমস অ্যান্ডারসন, জোফ্রা আর্চারদের বিরুদ্ধে তৃতীয় টেস্টে নামার আগে প্রস্তুতির খামতি নেই টিম ইন্ডিয়ার। আর অনুশীলন যদি কোনও কিছুর ইঙ্গিত হয়, তাহলে বলতেই হচ্ছে বুধবার থেকে শুরু হতে চলা গোলাপি টেস্টে কোহলির দলে জোড়া বদল হচ্ছে। সিরাজের বদলে প্রথম একাদশে ঢুকছেন বুমরাহ। আর কুলদীপের বদলে হয়তো প্রথম একাদশে আসতে চলেছেন হার্দিক পান্ডিয়া।

- Advertisement -

দিন-রাতের টেস্টে ভারতের প্রথম একাদশ শেষ পর্যন্ত যেমনই হোক না কেন, বিশেষ অনুশীলন শেষে সন্ধ্যায় ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে হাজির হয়ে হিটম্যান দুটো বিষয় স্পষ্ট করেছেন। এক, চিপকের মতো সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামেও ঘূর্ণি উইকেট হচ্ছে। দুই, গোলাপি টেস্টে গোধূলিবেলা নিয়ে সতীর্থদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সঙ্গে ইংল্যান্ডের পিচ সমালোচকদের একহাত নিয়েছেন তিনি। হিটম্যানের কথায়, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মাত্র একটি দিন-রাতের টেস্টের অভিজ্ঞতা আমার। সেই ম্যাচের সময় গোধূলিবেলা নিয়ে অনেক কিছু শুনেছি। ঠিক ওই সময়ে ব্যাট করা হয়নি আমার। কিন্তু সূর্যাস্তের সঙ্গে নৈশালোকে মানিয়ে নেওয়ার কাজটা বেশ চ্যালেঞ্জিং। এব্যাপারে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। চিপকে দ্বিতীয় টেস্টের ঘূর্ণি উইকেট নিয়ে ইতিমধ্যেই অনেক বিতর্ক হয়েছে। ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ক্রিকেটাররা তুমুল সমালোচনা করেছিলেন পিচের।

মোতেরার উইকেট কেমন হবে? ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এমন প্রশ্ন আসতেই রোহিত স্টেপআউট করলেন। ইংরেজদের পালটা চাপ দেওয়ার স্ট্র্যাটেজিতে গিয়ে তিনি বলেন, এখনই হয়তো পিচ নিয়ে বলার সময় আসেনি। তবে চেন্নাইয়ে দ্বিতীয় টেস্টের মতোই পিচ হবে বলে মনে হয়। বল ঘুরবে নিশ্চিতভাবেই। সেভাবেই প্রস্তুত হচ্ছি আমরা। পাশাপাশি মোতেরায় যেহেতু অনেকদিন আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয়নি, তাই পিচ নিয়ে খেলা শুরুর আগে পর্যন্ত আলোচনা চালিয়ে যাব আমরা। আর হ্যাঁ, মনে রাখতে হবে পিচ কিন্তু দুই দলের জন্যই সমান হবে। জানি না ওরা পিচ নিয়ে কেন এত আলোচনা করে। বিশেষজ্ঞরা ক্রিকেট নিয়ে কথা বলুক, পিচ নিয়ে নয়।

চলতি সিরিজের বাকি দুই টেস্টে হারা চলবে না। দুটোই জিতলে ভালো হয়। না হলে একটি জয় ও অপরটি ড্র হলেই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়ানশিপের ফাইনালে পৌঁছে যাবে টিম ইন্ডিয়া। রোহিত অবশ্য এখনই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়ানশিপ ফাইনাল নিয়ে ভাবতে রাজি নন। তাঁর কথায়, বাইরের বিষয় নিয়ে এখনই ভাবতে চাই না। এই সিরিজে এখনও অনেক খেলা বাকি। আপাতত আমরা গোলাপি টেস্ট নিয়ে ভাবছি।