চাপ সামলাতে জানি, বলছেন আত্মবিশ্বাসী ধাওয়ান

পুনে : স্বাস্থ্যকর প্রতিযোগিতা। এভারেস্ট সমান চাপ। সঙ্গে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াই।

এমন পরিস্থিতির মধ্যে সেরাটা দিয়ে পারফর্ম করা সহজ কাজের মধ্যে পড়ে না। কিন্তু তিনি শিখর ধাওয়ান সুযোগ পেয়ে করে দেখিয়েছিলেন। তাঁর কেরিয়ারের ভবিষ্যৎ নিয়ে তৈরি হওয়া সংশয়কে আপাতত বাউন্ডারির বাইরে পাঠিয়ে দিয়েছেন গতকাল ৯৮ রানের ইনিংস খেলে। অধিনায়ক বিরাট কোহলির প্রশংসাও পেয়ে গিয়েছেন ভারতীয় ওপেনার। টিমম্যান শিখরকে প্রশংসায় ভরিয়ে কোহলি বলেন, টি২০ সিরিজে শিখরকে সেভাবে সুযোগ দিতে না পারলেও কখনই ওকে মনমরা হয়ে থাকতে দেখিনি। সবসময় আমাদের উৎসাহ দিয়ে গিয়েছে। ওয়ান ডে ম্যাচে সুযোগ পেয়ে ও প্রমাণ করল নিজের যোগ্যতা। ধাওয়ানের ৯৮ রানের ইনিংসটা শতরানের চেয়ে বড়ো।

- Advertisement -

রোহিত শর্মার সঙ্গে তাঁর দুরন্ত সম্পর্কের রসায়ন সবার জানা। পরিসংখ্যানের বিচারে রোহিত-ধাওয়ান সাদা বলের ক্রিকেটে ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা জুটিও। হিটম্যান দলে অটোমেটিক চয়েজ হলেও গব্বর (ধাওয়ানের ডাকনাম) এখন নন। লোকেশ রাহুল থেকে শুরু করে ঈশান কিষান, তাঁকে চাপে ফেলার তালিকাটা ভারতীয় ক্রিকেটে এখন দীর্ঘ। এমসিএ স্টেডিয়ামে রোহিতের সঙ্গে ওপেন করতে নামার সময় ধাওয়ান কি চাপে ছিলেন? ম্যাচের সেরা হয়ে গত রাতে ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনের শুরুতেই এমন প্রশ্ন করা হয়েছিল তাঁকে।

জবাবে ধাওয়ান বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে চাপ সবসময় থাকে। আমি দীর্ঘসময় ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছি। ফলে এই চাপ নিয়ে চলতে বা সামলাতে জানি ভালোই। ৯৮ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয়েছে। অল্পের জন্য শতরান হাতছাড়া হয়েছে। এর জন্য কোনও অনুশোচনা নেই টিম ইন্ডিয়ার গব্বরের। তাঁর কথায়, বরাবরই পজিটিভ মানসিকতায় বিশ্বাসী আমি। নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মধ্যে সবসময় থাকতে পছন্দ করি। তাই নিজের ফিটনেসের ব্যাপারে আমি যেমন সতর্ক, তেমনই ক্রিকেটীয় স্কিলও ধরে রাখতে জানি। অনুশীলনে ফাঁকি দিই না কখনই।

গব্বর ইজ ব্যাক! শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ান ডে ম্যাচেও রোহিতের সঙ্গে ওপেন করবেন ধাওয়ান। তার আগে প্রথম ম্যাচ জয়ের পর আজ পুরো দিনটাই হোটেলের বিশ্রামে কাটাল ভারতীয় দল। দুপুরে টিম হোটেলে কোচ রবি শাস্ত্রী রোহিত-কোহলিদের মধ্যাহ্নভোজনে আপ্যায়ণ করলেন। দলের অধিনায়ক, সহ অধিনায়ক ছাড়াও হার্দিক, ক্রুণাল, চাহাল, ঋষভরাও হাজির ছিলেন।