পেস-শক্তির জন্য ইয়ানের বাজি ভারত

সিডনি : ইংলিশ কন্ডিশনের গোলকধাঁধায় ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে  বেলাইন হয়েছিল বিরাট ব্রিগেড। জেমিসন-সাউদিদের সুইংয়ের মুখে ভরাডুবি ভারতের তারকাখচিত ব্যাটিং লাইনআপের। বোলিংয়েও তথৈবচ। জসপ্রীত বুমরাহ সুপার ফ্লপ। ইশান্ত শর্মাও হতাশ করেছেন। যদিও পেস ব্রিগেডের জন্যই ৪ অগাস্ট শুরু টেস্ট সিরিজে ভারতের জয়ের সম্ভাবনা দেখছেন ইয়ান চ্যাপেল।

প্রাক্তন অজি অধিনায়কের কথায়, ভারত পেস সমৃদ্ধ দল। যার কারণে ইংল্যান্ডকে তাদের ঘরের মাঠেও হারানোর ক্ষমতা রাখে। ভারতীয় পেস ব্রিগেডের ভুয়সী প্রশংসা করে ইয়ান চ্যাপেল বলেন, পেসসমৃদ্ধ দলের তালিকায় ভারতও ঢুকে পড়েছে। ফলশ্রুতিতে অস্ট্রেলিয়ায় সাফল্য পেয়েছে। ডব্লিউটিসি-র ফাইনালে উঠেছে। এখন ইংল্যান্ডকে তাদের ঘরের মাঠেও হারানোর সুযোগ। শক্তিশালী পেস বোলিং ইউনিট, নিশ্চিতভাবে অ্যাডভান্টেজ।

- Advertisement -

টেস্ট বিশ্বযুদ্ধের ফাইনালে অবশ্য নিউজিল্যান্ডকে যোগ্য হিসেবেই জয়ী বলছেন। ইয়ানের যুক্তি, প্রথম টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে জয়টা প্রাপ্য ছিল ওদের। টিম সাউদি, ট্রেন্ট বোল্ট, নীল ওয়াগনর ও কাইল জেমিসনের জন্যই নিউজিল্যান্ডের ফাইনালের টিকিট পাওয়া। আর খেতাবি যুদ্ধে ভারতের সঙ্গে দুরন্ত লড়াইয়ে শিরোপা জয় দ্রুতগতির বোলারদের সৌজন্যেই। এই কিউয়ি পেস ব্রিগেডের তুলনা করা যেতে পারে ক্যারিবিয়ান পেস বোলিংয়ে সঙ্গে, যারা ১৯৭০ থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত রাজত্ব চালিয়েছিল।

ডব্লিউটিসি ফাইনালে জেমিসনের ফর্ম তফাৎ গড়ে দেয়। শেষ কয়েকটা টেস্টে দীর্ঘকায় পেসার এগিয়ে থাকলেও, ইয়ান চ্যাপেলের কাছে কিউয়ি পেস ব্রিগেডের আসল নেতা সাউদিই। বলেন, পরিসংখ্যানকে গুরুত্ব দিলে এগিয়ে থাকবে জেমিসনই। কিন্তু অভিজ্ঞতা ধরলে, আসল লোক কিন্তু টিম সাউদিই। বোল্ট-সাউদি-জেমিসন-ওয়াগনররা এখনও একসঙ্গে ৫টি ম্যাচ খেলে সবটকাতেই জিতেছে।