বিরাট সংসারে কাঁটার নাম রাহুল-ধাওয়ান

অরিন্দম বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা : সিরিজ জয়ের মাধ্যমে পরীক্ষার প্রথম পর্ব সফল। তারুণ্যের জোশের পাশে টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটীয় আগ্রাসনের প্রশংসা সর্বত্র। যার মুখ হিসেবে সামনে এসেছে ঈশান কিষান, সূর্যকুমার যাদবের নাম। আর তার মধ্যেই কাঁটা হিসেবে হাজির লোকেশ রাহুল ও শিখর ধাওয়ান।

জসপ্রীত বুমরাহ, রবীন্দ্র জাদেজাদের ছাড়াই সিরিজ জয়। তাও আবার সাম্প্রতিক ঐতিহ্য মেনে, মোট দুই বার সিরিজে পিছিয়ে পড়ে। এভাবেও ফিরে আসা যায়, বারবার প্রমাণ করে চলেছে বিরাট কোহলির ভারত। স্বাভাবিকভাবেই অক্টোবরে দেশের মাঠে টি২০ বিশ্বকাপের টিম ইন্ডিয়াকে নিয়ে প্রত্যাশা এভারেস্টের উচ্চতাকেও ছাপিয়ে যেতে চলেছে। তার আগে আজ উত্তরবঙ্গ সংবাদের তরফে কুড়ির বিশ্বকাপের লক্ষ্যে গতকালই শেষ হওয়া টি২০ সিরিজের প্রাপ্তি, অপ্রাপ্তি নিয়ে ছানবিন চালানো হল টিম ইন্ডিয়ার অন্দরে। দেখা গেল, কোহলিদের প্রাপ্তির ভাঁড়ার প্রায় পূর্ণ।

- Advertisement -

রান মেশিনে রান খরা

গত কয়েক বছর ধরে সাদা বলের ক্রিকেটে টিম ইন্ডিয়ায় অটোমেটিক চয়েজ লোকেশ রাহুল। ব্যাটিংয়ের পাশে কিপিং করে দলকে ভরসা দিয়েছেন তিনি। তাঁকে কোহলির সংসারের রান মেশিন বলা হচ্ছিল একসময়। সেই রান মেশিনে এখন রান খরা চলছে। চার ম্যাচে ১৫ রান যার উদাহরণ। যদিও কোহলি-শাস্ত্রীদের এখনও আস্থা রয়েছে রাহুলে। হয়তো ফের সুযোগ আসবে তাঁর। কিন্তু গত রাতে কোহলি-রোহিত ওপেনিং জুটি বিকল্প হিসেবে সামনে আসার পর শিখর ধাওয়ানের পক্ষে প্রথম একাদশে ফেরা রীতিমতো কঠিন এখন।

ঈশান কোনে সূর্যোদয়

তারুণ্যের জোশ। ভয়ডরহীন ক্রিকেট। শুরু থেকেই বিপক্ষের ঘাড়ে চেপে বসা। ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের আবিষ্কার নিশ্চিতভাবেই ঈশান কিষান, সূর্যকুমার যাদব। সুযোগ পেয়ে তাঁরা ব্যাট হাতে চরম আগ্রাসনের পাশে দলকে ভরসা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেখানোর পর মনে করা হচ্ছে, অক্টোবরে টি২০ বিশ্বকাপের দলে তাঁদের জায়গা পাকা। সঙ্গে কোহলির সংসারে মিডলঅর্ডারে ট্রাফিক জ্যাম হতে চলেছে।

হার্দিক-ভুবির প্রত্যাবর্তন

অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া ও সুইং মাস্টার ভুবেনেশ্বর কুমারের ফিট হয়ে কামব্যাক করা, পারফর্ম করে দলকে জয়ে পথে নিয়ে যাওয়া কোহলি-শাস্ত্রীদের জন্য স্বস্তির খবর। বুমরাহ, সামিদের অনুপস্থিতিতে মরগ্যান-বাটলারদের বিরুদ্ধে সিরিজে ভুবি-হার্দিক দলকে ভরসা দিয়ে ভারসাম্য বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁদের ছাড়া বিশ্বকাপের স্কোয়াড অসম্পূর্ণ থেকে যাবে।

বিরাট ফর্ম ও প্রত্যাশা

৫ ম্যাচে ২৩১ রান। সঙ্গে সিরিজ সেরার পুরষ্কার। করোনা অতিমারি, লকডাউনে জেরবার ২০২০ সালটা তাঁর ভালো যায়নি। ২০২১ সালের শুরু থেকেই ক্যাপটেন কোহলির ফর্ম টিম ইন্ডিয়ার জন্য প্রাপ্তি ও স্বস্তি। কারণ, বিরাট ফর্মে থাকলে ভারতীয় ব্যাটিংয়ে উপর কোনও চাপ থাকে না, একথা সবারই জানা। উপরি হিসেবে গত রাতে নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে রোহিতের সঙ্গে ওপেন করে সফল হয়ে নয়া জুটির জল্পনা উসকে দিয়েছেন। কোহলি প্রমাণ করেছেন, তিনি ওপেন করলে দলের মিডলঅর্ডারের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যায়। ফলে বিরাট ফর্ম বিশ্বকাপ নিয়ে নয়া প্রত্যাশারও জন্ম দিয়েছে।