ভারত-চিন সংঘর্ষের জের, নৌ মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানাবে ভারত

531

দিল্লি: লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত-চিন সংঘর্ষের পর অসম্ভবকে সম্ভব করতে চায় ভারত। চলতি বছরের শেষ দিকে বঙ্গোপসাগরের মালাবার উপকূলে জাপান ও আমেরিকার সঙ্গে ভারতীয় নৌ সেনার মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানানো হবে বলে খবর। লাদাখ সীমান্তে সংঘর্ষে পর একাধিক বিষয়ে নীতি বদলের মতো নৌ মহড়ায় এবছর প্রথম অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই অস্ট্রেলিয়া সরকারের কাছে আমন্ত্রণ পাঠাচ্ছে দিল্লি। এতদিন চিন অখুশি হবে মনে করে ভারত এই মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে অংশ নিতে দিত না।

বিশেষজ্ঞদের মতে, গালওয়ানে ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষের পর থেকে বদলে গিয়েছে এশিয়ার এই অঞ্চলের পরিস্থিতি। আগে যে বিষয়গুলো অসম্ভব বলে মনে হত এখনই সেগুলিকেই চোখের সামনে বাস্তব হতে দেখা হচ্ছে। বদলে যাচ্ছে ভারতের সঙ্গে এশিয়ার কিছু দেশের সম্পর্কের রূপও।যেমন নেপাল ও বহু ক্ষেত্রে ভুটান সরকারের কিছু আচরণের মধ্যে শত্রুতার মনোভাব রয়েছে বলে মনে হচ্ছে। অন্যদিকে তেমনি জাপান বা অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আগের থেকে অনেক বাড়ছে যোগাযোগ। তার ফলশ্রুতিতেই দীর্ঘদিনের নীতি বদলে ফেলল নয়াদিল্লি। জাপান ও আমেরিকার সঙ্গে ভারতীয় নৌ সেনার মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

ভারতীয় নৌ সেনা সূত্রে খবর, ভারতীয় নৌ সেনা অনেকদিন ধরেই মালাবার উপকূলে প্রতিবছর জাপান ও আমেরিকার সঙ্গে যৌথ নৌ মহড়া এর আয়োজন করে।চিন অখুশি হবে মনে করে ভারত এই মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে অংশ নিতে দিত না। আপত্তি জানাত। কিন্তু, লাদাখের ঘটনা পুরো ছবিটাই বদলে দিয়েছে। বেজিং কী মনে করবে তা আর ভাবছেই না দিল্লি। তাই চলতি বছরের শেষদিকে মালাবার উপকূলে হতে চলা যৌথ নৌ মহড়ায় ভারত, জাপান ও আমেরিকার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়াকে অংশ নিতে দেখা যাবে।

বিশেষজ্ঞরা আরও বলছেন, চিনের আগ্রাসন রুখতে এক দশক আগেই ভারত আমেরিকা, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ‘কোয়াড’ নামে একটি জোট গড়ে তুলেছে। কিন্তু, এতদিন জাপান ও আমেরিকার সঙ্গে ভারত যৌথ নৌ মহড়া চালালেও অস্ট্রেলিয়ার অংশগ্রহণে তাদের আপত্তি ছিল। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়াও চিন অখুশি হবে এরকম কোনও কাজ করত না। কিন্তু, স্কট মরিসন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেই তারা চিনের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াচ্ছে। সেনা সংঘর্ষের পরে অস্ট্রেলিয়া বেজিংয়ের বিরুদ্ধে দিল্লির পাশে থাকারই বার্তা দিয়েছিল। তারই ফলশ্রুতিতে দীর্ঘদিনের নীতি বদলে ফেলল দিল্লি।এবছর নৌ মহড়ায় আমন্ত্রণ জানানো হবে অস্ট্রেলিয়াকে।