লাদাখে সব চক্রান্ত ব্যর্থ করেছে ভারতীয় সেনা: প্রধানমন্ত্রী

277

লাদাখ: সেনার মনোবল বাড়াতে শুক্রবার সকালে আচমকাই লাদাখ পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রে মোদি। লাদাখের লেহ সেনা ঘাঁটিতে প্রধানমন্ত্রী দেন। সেই ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, লাদাখে চিনা চক্রান্ত ব্যর্থ করেছেন আপানারা(সেনারা)। আপনাদের বীরত্ব পুরো বিশ্বকে বুঝিয়ে দিয়েছে ভারতের শক্তি কতটা। আপনাদের হাতে দেশরক্ষার ভার যখন রয়েছে, তখন পুরো দেশ নিশ্চিন্ত। আজ আপনাদের মাঝে এসে আমি এটা অনুভব করছি। আপনাদের ইচ্ছাশক্তি এই পর্বতের মতোই অটল।

এদিন প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে ছিলেন,ভারতের তিন বাহিনীর প্রধান চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত এবং স্থলবাহিনীর প্রধান মনোজ মুকুন্দ নরবণে। এদিন সেনাগাঁটিতে পৌঁছানোর পর লেহ থেকে তিনি এলএসি-র দিকে ফরওয়ার্ড পোস্ট ঘুরে দেখেন। কথা বলেন সীমান্তে মোতায়েন জওয়ানদের সঙ্গে। ১৫ জুন রাতে গালওয়ানের সংঘর্ষে যে জওয়ানরা জখম হয়েছিলেন, তাঁদের সঙ্গেও প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যেই দেখা করেছেন বলেও জানা যাচ্ছে।

- Advertisement -

এদিন প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা সবাই মিলে আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তুলব। ভারতের স্বপ্নপূরণে ১৩০ কোটি ভারতবাসীও পিছিয়ে থাকবে না। আমরা সবাই মিলে এবং বিশেষ করে আপনারা সীমান্তে দেশকে রক্ষা করছেন। আপনাদের কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে আমরা কঠিন চ্যালেঞ্জকেও মোকাবিলা করব। আজ গোটা দেশ একজোট হয়ে লড়ছে। সব দেশ আজ বিস্তারবাদের বিরুদ্ধে একজোট। যার মাথায় বিস্তারবাদের ভূত চাপে, সে শান্তি নষ্ট করে। বিস্তারবাদই এখন সব জায়গায় প্রাসঙ্গিক, বিস্তারবাদীরা শান্তির পক্ষে বিপজ্জনক। বিস্তারবাদের যুগ শেষ হয়ে গিয়েছে। গোটা বিশ্ব আজ বিকাশবাদের পথে চলতে চায়। গোটা বিশ্ব এই বিস্তারবাদী শক্তির বিরোধিতা করার বিষয়ে মনস্থির করে ফেলেছে। ইতিহাস সাক্ষী, এই সব শক্তি মুছে গিয়েছে, অথবা নত হতে বাধ্য হয়েছে। কিন্তু কেউ কেউ এখনও বিস্তারবাদে বিশ্বাসী। গোটা বিশ্ব আজ বিকাশবাদে বিশ্বাসী।

একই সঙ্গে বলেন, ভারতীয় সেনার আত্মবিশ্বাস আমি বুঝতে পারছি। ভারতের শত্রুতা সেনার শক্তি দেখেছে। আমরা হলাম সেই লোক, যাঁরা বংশীধারী শ্রীকৃষ্ণের ধ্বজা ধরি, আবার সুদর্শন চক্রধারী শ্রীকৃষ্ণকেও আদর্শ মানি। ১৪ কোরের বীরত্বের কাহিনী সবাই জানে। দেশের সব প্রান্তের বীররা গালওয়ানে নিজেদের শৌর্য দেখিয়েছেন। গালওয়ান উপত্যকায় শহিদ জওয়ানদের আমি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। আপনাদের বীরত্ব পুরো বিশ্বকে বুঝিয়ে দিয়েছে ভারতের শক্তি কতটা। রোজ আপনারা নিজেদের পদক্ষেপে মাপেন। আপনাদের সঙ্কল্প এই উপত্যকার চেয়েও শক্ত। আপনারা বীরত্বের পরিচয় দিয়েছেন।

উল্লেখ্য,সীমান্তে শান্তি ফেরাতে দুই দেশের মধ্যে সেনার উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হলেও মেলেনি কোনও সমাধানসূত্র। বরং চিন ক্রমেই বাড়িয়েছে সেনা মোতায়েন। আরও বেশি ঢুকে এসেছে ভারতীয় ভূখণ্ডে। উপগ্রহ চিত্রে বাঙ্কার বানানো ও সেনা মোতায়েনের ছবি ধরা পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী মোদী নিজে গিয়ে পৌঁছলেন লাদাখে। মনোবল বাড়ালেন ভারতীয় সেনাদের। আর তাঁকে দেখেই বন্দেমাতরম ও ভারত মাতা কি জয় ধ্বনিতে তাঁকে স্বাগত জানালেন জওয়ানরাও।

Indian Army foils all plans in Ladakh: PM