নাসার চন্দ্রাভিযান মিশনে বড় দায়িত্বে ভারতীয় কন্যা

84

ওয়াশিংটন : অর্ধ শতক পরে চাঁদের মাটিতে আবার পা রাখতে চলেছে নাসার মহাকাশ যান। নাসার এবারের চন্দ্রাভিযান প্রকল্পের বড় দায়িত্বে রয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত সুবাসিনী আয়ার। তামিল তনয়ার তত্ত্বাবধানে রয়েছে মহাকাশ যানের কোর স্টোরেজ। এই অভিযানে নভশ্চরেরা চাঁদের মাটিতে নেমে উপগ্রহটির চরিত্র, প্রকৃতি বহু অজানা তথ্যের অনুপুঙ্খ অনুসন্ধান চালাবেন।

তামিলনাড়ুর কোয়াম্বাটুরে জন্ম সুবাসিনীর। কোভাইপুদুরে ভিএল বালাকৃষ্ণ জনকিম্মল আর্টস অ্যান্ড সায়েন্স কলেজের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অন্যতম প্রথম মহিলা স্নাতক তিনি। গ্র‌্যাজুয়েশন করেছেন ১৯৯২ সালে। বর্তমানে নাসার মেকানিক্যাল ও ইলেক্ট্রিক ইঞ্জিনিয়ারদের শীর্ষে।  এই প্রকল্পের সঙ্গে গত দুবছর ধরে যুক্ত।  সুবাসিনী জানিয়েছেন, শুধু চাঁদ কেন মঙ্গলেও নামবেন মার্কিন নভশ্চররা। সেই প্রস্তুতি নিচ্ছে নাসা।   চন্দ্রাভিযানের নামকরণ করা হয়েছে আর্টেমিস লুনার এক্সপ্লোরেশন। এজন্য দুটি মহাকাশ যান পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে।  ১৯৬৯ সালে চাঁদের মাটিতে প্রথম পা রেখেছিলেন মার্কিন নভশ্চর তথা বিমান-ইঞ্জিনিয়ার নীল আর্মস্ট্রং। মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটির একটি সূত্র জানিয়েছে, নাসার এই চন্দ্রাভিযানে নভশ্চররা চাঁদের মাটিতে পা রাখবেন ২০২৪ সালে।

- Advertisement -