আইএসএলে চার বিদেশির সিদ্ধান্তে শিলমোহর

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : আগামী মরশুম থেকে আইএসএলের দলগুলিকে আর সাত নয়, আই লিগের মতো চার বিদেশি নিয়ে খেলতে হবে। এই মরশুম শেষ হতেই শিলমোহর দেওয়া হল এই নিয়মে।

আই লিগে তিনজন সাধারণ বিদেশি এবং একজন এশিয় ফুটবলার খেলানোর নিয়ম ফের একবার এই মরশুম থেকেই চালু হয়ে গিয়েছে। যা মুলত সুপারিশ ছিল ফিফা-এএফসির তরফে। তরুন ফুটবলার তুলে আনার লক্ষ্যেই এই নিয়ম চালু করার কথা বলা হয়েছিল সেসময়। কিন্তু গত মরশুমে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে, এই অজুহাতে আইএসএল আয়োজকরা এই নিয়ম মানতে চাননি। এবার আর অবশ্য এফএসডিএল দেরি না করে, মরশুম শেষ হতেই জানিয়ে দিয়েছে নতুন নিয়মেই খেলা হবে আগামী আইএসএল। তবে চার বিদেশির মধ্যে একজন এশিয় থাকা বাধ্যতামুলক কি না তা এখনও জানানো হয়নি।

- Advertisement -

যদিও ক্লাবসুত্রের খবর, তাদের এশিয় রাখতে বলা হয়েছে। আইএসএলের বেশ কয়েজন বিদেশি কোচ গত মরশুমে এই নিয়মের বিরোধিতা করেন। যার মধ্যে বাগান কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাসও আছেন। তবে শেষপর্যন্ত তাঁদের এই বিরোধিতা ধোপে টিকলো না, এটা পরিষ্কার। তার বড়ো কারণ, এখন আইএসএল সরকারিভাবে এই দেশের এক নম্বর লিগ। ফলে এএফসির নিয়ম মানতে তারা বাধ্য। বিশেষকরে যেখানে এখান থেকে দুটি দল এএফসির টুর্নামেন্টে খেলতে যাচ্ছে। এবারই এফসি গোয়া ও এটিকে মোহনবাগানকে তাদের সাত বিদেশিদের মধ্যে থেকে ছাঁটাই করতে হচ্ছে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও এএফসি কাপ খেলার জন্য।

এদিকে, আগামী মরশুমের জন্য নতুন কোচ বাছাইয়ে কাজ শুরু করে দিল ব্যর্থ ক্লাবগুলি। কেরালা ব্লাস্টার্সে ফের ফিরতে পারেন এলকো শাতোরি। তাঁকে এবং ইউসেবিও সেক্রেস্তানকে বাছাই তালিকার শুরুতেই রাখা হয়েছে। এলকো ২০১৯-২০ মরশুমেই ছিলেন কেরালায়। আর ইউসেবিওকে এসসি ইস্টবেঙ্গল ২০২০-২১ মরশুম শুরুর আগে বাছাই তালিকায় রাখে। তবে যা পরিস্থিতি তাতে এবারও তাঁর থেকে এলকোর সম্ভাবনাই বেশি কেরলে।