বেহাল অবস্থায় ইনডং প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র

103

মেটেলি: চা বাগান বেষ্টিত পাহাড়ের কোলে অবস্থিত মেটেলি। আর সেখানেই আশেপাশের ১২টি বাগানের মানুষদের স্বাস্থ্য পরিষেবা দিতে কয়েক দশক আগে তৈরি হয়েছিল ইনডং প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র। কিন্তু বর্তমানে বেহাল দশা হয়ে রয়েছে স্বাস্থ্যকেন্দ্রটির।
বর্তমানে সেখানে একজন চিকিৎসক থাকলেও, নেই কোনও স্বাস্থ্যকর্মী। এমনকি নেই কোনও বেডও। ফলে মেটেলি সহ সংলগ্ন চা বাগানগুলোর বাসিন্দাদের স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্য হয় যেতে হচ্ছে ৮ কিমি দূরে চালসার মঙ্গলবাড়ী গ্রামীন হাসপাতালে, নয়তো ১৬ কিমি দূরে মাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। এতে তাঁদের যেমন অতিরিক্ত টাকা খরচ হচ্ছে তেমনি হয়রানির শিকারও হচ্ছেন তাঁরা। বিশেষ করে এলাকার গর্ভবতী মহিলাদের হতে হচ্ছে চরম ভোগান্তির সম্মুখীন।
বাসিন্দাদের দাবি, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসক ও কর্মী নিয়োগ,পর্যাপ্ত বেডের ব্যবস্থা ও পরিকাঠামোর উন্নয়ন করা হোক।ভোটের আগে ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি নিয়ে বাক যুদ্ধের খেলাও শুরু হয়েছে শাসক ও বিরোধী দলের প্রার্থীদের মধ্যে। স্বাস্থ্যকেন্দ্রটির বেহাল দশাকেই হাতিয়ার করে সংলগ্ন চা বাগানে প্রচার চালাচ্ছে বিরোধী দলগুলো।নাগড়াকাটা বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী পুনা ভেংরা জানান,তিনিও ওই এলাকার বাসিন্দা। সমস্যার কথা তিনি জানেন। তৃণমূল সরকার রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নতি করতে পারেনি। শুধু তোলাবাজি,লুট করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। পাশাপাশি জিতলে ওই হাসপাতালে পরিকাঠামোর উন্নয়ন সহ ২০টি বেডের ব্যবস্থা করবেন বলেও আশ্বাস দেন তিনি।
নাগড়াকাটা বিধানসভার তৃণমূলের প্রার্থী জোসেফ মুন্ডা জানান,রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা কেমন সেটা মানুষ জানে। বিজেপি যতই বলুক তাঁদের কথায় মানুষ বিশ্বাস করেনা।মালবাজারের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল হয়েছে। সামসিং চা বাগানেও একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র করার পরিকল্পনা হয়েছে। ভোটের পর তৃণমূল সরকারই ইনডং প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রটির উন্নতি করবে।