ভরা বর্ষা ও শীতে বাড়বে করোনা সংক্রমণ, দাবি গবেষকদের

287

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: ভরা বর্ষা ও শীতে বাড়বে করোনা সংক্রমণ, এমনই দাবি জানিয়েছেন গবেষকরা। সারা বিশ্ব তথা দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই লাফিয়ে বাড়ছে। ভারতে সংক্রমণ কোনওভাবেই রোখা যাচ্ছে না। এই পরস্থিতিতে আইআইটি-ভুবনেশ্বর এবং এইমসের গবেষকদের এমন দাবি চিন্তায় ফেলেছে দেশবাসীকে।

উল্লেখ্য, দেশে এখনও পর্যন্ত ১১ লক্ষ ১৮ হাজার ৪৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিস মিলেছে। ২৭ হাজার ৪৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। অ্য়াকটিভ কেস ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ৪৫৯টি। তবে আশার কথা, এখনও পর্যন্ত ৭ লক্ষ ৮৭ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সংক্রামিতদের সুস্থ করে তুলতে হাইড্রক্সি ক্লোরোকুইন, ডেক্সামেথাসন, রেমডেসিভিরের মতো ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও ভ্য়াকসিন আবিষ্কার হয়নি। বেশিরভাগ ভ্য়াকসিনেরই প্রথম পর্বের ট্রায়াল চলছে। আদৌ কবে প্রতিষেধক বাজারে আসবে সেই প্রশ্নের উত্তর জানা নেই কারও।

- Advertisement -

এই পরিস্থিতিতে একটি চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে আইআইটি-ভুবনেশ্বর এবং এইমসের গবেষকদের একটি দল। ভরা বর্ষা এবং শীতে করোনা সংক্রমণ ব্যাপক আকার নিতে পারে বলে তাদের গবেষণায় উঠে এসেছে।

আইআইটি-ভুবনেশ্বরের ভূ-বিজ্ঞান, সমুদ্র এবং আবহাওয়া বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ভি বিনোজ জানিয়েছেন, বর্ষাকালে বৃষ্টির জন্য তাপমাত্রা কমে যায়। আর শীতকালে এমনিতেই বায়ুমণ্ডল ঠান্ডা থাকে। এধরণের পরিবেশ করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর পক্ষে অনুকূল। গত এপ্রিল মাস থেকে জুন পর্যন্ত এবিষয়ে গবেষণা চালানো হয়েছে। অধ্যাপক ভি বিনোজ জানান, তাপমাত্রা বাড়লে করোনা সংক্রমণ কমার সম্ভাবনা থাকে। তবে একাংশ গবেষকের বক্তব্য, করোনা সংক্রমণের উপর তাপমাত্রার প্রভাব ঠিক কতটা, তা বোঝার জন্য আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে।

অন্যদিকে, দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে জানিয়েছে ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)। তাদের দাবি, এই মুহূর্তে ভারতে করোনা পরিস্থিতি যথেষ্টই খারাপ। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন হসপিটাল বোর্ড অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান ডক্টর ভিকে মোঙ্গা বলেছেন, ‘প্রতিদিন সংক্রামিতের সংখ্যা ৩০ হাজারের বেশি হচ্ছে। এটা সত্যিই দেশের পক্ষে খুবই খারাপ। এতে প্রমাণ হচ্ছে ভারতে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে।’