বাড়তি চাহিদা সামাল দিতে জলপাইগুড়িতে তিনটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট

120

জলপাইগুড়ি: ক্রমশ মাথাচাড়া দিচ্ছে করোনা সংক্রমণ। তার সঙ্গেই বাড়ছে অক্সিজেনের চাহিদাও। অক্সিজেনের এই বাড়তি চাহিদা মেটাতে জলপাইগুড়ি জেলায় তিনটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ি জেলার প্রস্তাবিত তিনটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরির জন্য বরাত পাওয়া জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি দল জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতাল, জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল এবং মাল মহকুমা হাসপাতাল পরিদর্শন করেন।

প্রতিনিধি দলটির তরফে জানানো হয়েছে, আগামী এক-দু’দিনের মধ্যেই তাঁরা প্ল্যান্ট তৈরির প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করবেন। অপরদিকে, বুধবার দুপুরের পর থেকেই জলপাইগুড়ি বিশ্ব বাংলা কোভিড হাসপাতালে সাময়িক অক্সিজেনের সমস্যা দেখা দিয়েছিল। বড় ডি টাইপ সিলিন্ডার ফাঁকা হয়ে যাওয়ায় সমস্যা দেখা দেয়। পরে ছোট বি টাইপ সিলিন্ডার দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়। তবে সর্বত্র যেভাবে অক্সিজেনের সংকট তৈরি হয়েছে তাতে আবারও সমস্যা দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। জেলা হাসপাতাল সুপার গয়ারাম নস্কর জানান, করোনা পরিস্থিতিতে দেশ এবং রাজ্য জুড়ে যে অক্সিজেনের সংকট তৈরি হয়েছে আগামীতে যাতে এই সমস্যার সম্মুখীন তাঁদের হতে না হয় তার জন্য জেলায় তিনটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষকে সরকারের তরফে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে প্ল্যান্টের ঘরবাড়ি এবং ইলেকট্রিক্যাল পরিকাঠামো তৈরি করার জন্য। এদিন জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ প্ল্যান্ট তৈরির প্রস্তাবিত জায়গাগুলি পরিদর্শন করেন। প্ল্যান্ট তৈরির টেকনিক্যাল কাজটি করবে ডিফেন্স রিসার্চ ডেভলপমেন্ট অথরিটি (ডিআরডিএ)। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী এদিন জেলা হাসপাতাল, জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে এবং মাল মহকুমা হাসপাতালের কোথায় প্ল্যান্ট তৈরি হবে তা পরিদর্শন করে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের টেকনিক্যাল ম্যানেজার প্রদ্যুত দাশগুপ্ত জানান, বর্তমানে দেশজুড়ে অক্সিজেনের সংকট দেখা দিয়েছে। সমস্যা মেটানোর জন্য অক্সিজেন প্ল্যান্ট তৈরি করা হচ্ছে। জেলায় তিনটি জায়গায় এই প্ল্যান্ট তৈরি হবে। প্ল্যান্টের ঘরবাড়ি নির্মাণের কাজ তাঁরা করবেন। কোথায় এই প্ল্যান্ট তৈরি হবে সেই জায়গাগুলি প্রাথমিকভাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

- Advertisement -