২২ হাজার বাড়িতে পানীয় জল দিতে উদ্যোগ

চাঁদকুমার বড়াল, কোচবিহার : জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তর (পিএইচই) কোচবিহার জেলার আরও প্রায় ২২ হাজার বাড়িতে পানীয় জলের সংযোগ দিতে উদ্যোগী হয়েছে। এজন্য তারা ১৫ কোটি টাকার প্রকল্প রাজ্যে পাঠিয়েছে। দপ্তর সূত্রে খবর, জেলার ১২টি ব্লকের কোথায় কোথায় এই প্রকল্প হবে তার বিস্তারিত তালিকা (ডিপিআর) তৈরি করে রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ এলেই ১৫টি জলপ্রকল্পের কাজ শুরু হবে। পিএইচইর কোচবিহারের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার নিত্যানন্দ আচার্যি বলেন, জলস্বপ্ন প্রকল্পে বাড়ি বাড়ি সংযোগ দেওয়ার কাজ চলছে। এর অধীনে কিছু পাইপলাইন বাড়াতে হবে। এজন্য বেশ কিছু প্রকল্প তৈরি করতে হবে। সবমিলিয়ে প্রায় ১৫ কোটি টাকা প্রয়োজন। এ বিষয়ে রাজ্যে তালিকা পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ এলেই কাজ শুরু করা হবে।

পিএইচই সূত্রে খবর, রাজ্যের অন্য জেলার পাশাপাশি কোচবিহারেও জলস্বপ্ন প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। এই প্রকল্পে বাড়ি বাড়ি পরিস্রুত পানীয় জলের সংযোগ দেওয়ার কাজ চলছে। কোচবিহার জেলায় ১২৮টি গ্রাম পঞ্চায়েত রয়েছে। এই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিতে প্রায় ছয় লক্ষ পরিবারের বসবাস। কিন্তু জেলার সমস্ত গ্রামে এখনও পরিস্রুত পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থা নেই। কোচবিহার জেলায় বর্তমানে বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা মিলে ১৩৯টি পরিস্রুত পানীয় জলপ্রকল্প রয়েছে। এই প্রকল্পগুলির মাধ্যমে গ্রামীণ বাসিন্দাদের ৬০ শতাংশ পানীয় জলের পরিষেবা পান। কিন্তু বাকি ৪০ শতাংশ বাসিন্দার কাছে এখনও পিএইচইর পরিস্রুত পানীয় জলের পরিষেবা অধরা। এনিয়ে তাঁদের মধ্যে বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। তাঁরা বহু আন্দোলন করেছেন। তাঁদের এ সমস্ত আন্দোলন বহুবারই সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে।

- Advertisement -

পিএইচই সূত্রে খবর, সমস্যা মেটাতে হলে কোচবিহারের বিভিন্ন ব্লকে তাদের পরিস্রুত পানীয় জলের যে পাইপ রয়েছে তা আরও বিস্তৃত করতে হবে। এর ফলে জেলার আরও প্রায় ২২ হাজার বাড়িতে পানীয় জলের সংযোগ দেওয়া সম্ভব হবে। এই কাজ করতে প্রায় ১৫ কোটি টাকা প্রযোজন। এজন্য পিএইচইর তরফে রাজ্যের কাছে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ চেয়ে পাঠানো হয়েছে। তা এলেই পরিস্রুত পানীয় জলপ্রকল্পগুলির কাজ শুরু হয়ে যাবে। এই জলপ্রকল্পগুলির কাজ শেষ হলে জেলায় পরিস্রুত পানীয় জলের সংকট অনেকটাই মেটানো সম্ভব হবে বলে সংশ্লিষ্ট মহল মনে করছে। আপাতত কবে বরাদ্দ মেলে সেদিকেই সংশ্লিষ্ট মহলের নজর রয়েছে।