চ্যাংরাবান্ধা, ২৫ জানুয়ারিঃ টানা তিনদিন ধরে শুল্ক দপ্তরের ইনটারনেট পরিসেবা বন্ধ হয়ে রয়েছে। যার কারণে কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা সীমান্তে ভারত-বাংলাদেশ এবং ভুটান-বাংলাদেশ বৈদেশিক বাণিজ্যের কাজে ব্যাপক সমস্যা তৈরি হয়েছে। ব্যাবসায়ীরা জানিয়েছেন, দ্রুত পরিসেবা সচল না হলে বৈদেশিক বাণিজ্য পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কারণ বর্তমানে এই স্থলবন্দরেও বৈদেশিক বাণিজ্য সংক্রান্ত সমস্ত কাজ হচ্ছে অনলাইন সিস্টেমে। গত তিনদিন ধরে এই পরিসেবা বেহাল থাকার কারণে সমস্ত রকম টেন্ডার প্রক্রিয়ার কাজ স্থগিত হয়ে রয়েছে। নথিপত্র নিয়ে ব্যবসায়িক প্রতিনিধিরা বারবার শুল্ক দপ্তরে গিয়েও তাঁরা ফিরে চলে আসছেন কাজ না হওয়ার জন্য। ইনটারনেট পরিসেবা নিয়ে সমস্যা তৈরি হওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন স্থানীয় শুল্ক দপ্তরের কর্তারাও। তবে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও জানানো হয়েছে বলে শুল্ক দপ্তরের চ্যাংরাবান্ধা শাখার সুপারিনটেনডেন্ট কপিল বাইন শনিবার জানিয়েছেন।

চ্যাংরাবান্ধা এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহ সভাপতি ভরত প্রসাদ গুপ্তা ও সম্পাদক বিমলকুমার ঘোষ প্রমুখ জানিয়েছেন, গত কয়েকদিন থেকে লিংক না থাকার কারণে বৈদেশিক বাণিজ্যের কাজে সমস্যা তৈরি হয়েছে। পণ্য বোঝাই অনেক ট্রাক সীমান্তের কাছে পৌঁছে যাওয়ার পরেও সেগুলি আটকে রয়েছে। মাঝেমধ্যেই ইনটারনেট পরিসেবা বিঘ্ন ঘটার কারণে বহির্বাণিজ্যের কাজে ব্যাঘাত ঘটছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। বিষয়টি শুল্ক দপ্তরের কর্তাদের নজরে আনা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।