গোয়ায় প্রত্যাশার চাপ উপভোগ করেছেন ওর্তিজ

সুস্মিতা গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা : শুরুর দিকে ইগর আঙ্গুলোকে নিয়ে হইচই হলেও আপাতত জোরগে ওর্তিজ মেন্ডোজার উপরেই ভরসা করছে এফসি গোয়া। স্প্যানিশ উইংগারও হতাশ করেননি দলকে। প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে তাঁর জুড়ি নেই। সেই ওর্তিজ এফসি গোয়া থেকে ভারতীয় ফুটবল, এখনও পর্যন্ত নিজের অভিজ্ঞতার ঝুলি মেলে ধরলেন উত্তরবঙ্গ সংবাদের কাছে-

প্রশ্ন : এদেশে খেলতে আসার বিশেষ কোনও কারণ?
ওর্তিজ : আমি এডু বেদিয়াকে অনেকদিন ধরে চিনি। এফসি গোয়ার প্রস্তাব পেয়ে আমার একটা জিনিষই ভালো লেগেছিল, সেটা ওদের পেশাদারীত্ব। আর এডুও আমাকে বারবার রাজি হতে বলে। আমি নিজেও অভিজ্ঞতা বাড়াতে চাইছিলাম এরকম অচেনা একটা জায়গায় খেলে। আর এগুলোই আমাকে টেনে নিয়ে আসে।

- Advertisement -

প্রশ্ন : এর আগে ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে কোনও ধারনা ছিল? এখানে খেলা স্প্যানিশ বন্ধুরা কিছু বলেছিলেন?
ওর্তিজ : আইএসএলে খেলা অনেক স্প্যানিশ ফুটবলারই আমার বন্ধু। এডু বেদিয়ার কথা আগেই বলেছি। এছাড়াও কার্লোস পেনাকে চিনতাম। এখানকার লিগ ও ক্লাব সম্পর্কে ওদের কাছে ভালো ভালো অভিজ্ঞতাই ছিল। তাই খারাপ বলার প্রশ্নই ওঠে না। খেলতে এসে দেখছি, ওরাই ঠিক।

প্রশ্ন : মরশুম শুরুর দিকে এফসি গোয়া মূলত ইগর আঙ্গুলোর উপরেই নির্ভরশীল ছিল। এখন দেখা যাচ্ছে, সেই দায়িত্বটা আপনার উপর পড়েছে। এটা কি চাপ বাড়াচ্ছে নাকি উপভোগ করছেন ?
ওর্তিজ : এটাকে আমি চাপ বলতে চাই না। বরং উপভোগ করছি। এটাও ঘটনা, দলকে জেতান শুধু ইগর বা আমার দায়িত্ব নয়। গোল করা আমাদের কাজ হলেও প্রতিটি পজিশনই কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ। মাঝমাঠ বা ডিফেন্স ভালো খেললেই গোল করার সুযোগ বাড়ে।

প্রশ্ন : এই মরশুমে আপনাদের দল এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মতো এশিয়ার একটা বড়ো টুর্নামেন্টে খেলবে। যেটা দল এবং এদেশের ফুটবলের পক্ষেও বড়ো সম্মান। কিভাবে তৈরি করছেন নিজেদের ?
ওর্তিজ : সত্যিই গর্বিত হওয়ার মতোই ঘটনা। একইসঙ্গে বড় দায়িত্বও। জানি, এটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ আমাদের সবার জন্য। তবে আগে লিগটা ভালোভাবে শেষ করতে চাই। তারপর এএফসি চ্যাম্পিযন্স লিগের জন্য তৈরি হব। একশো শতাংশ দিতে হবে দুটোতেই।

প্রশ্ন : এই টুর্নামেন্টে এফসি গোয়া ইরান, কাতারের দুটি ক্লাব ছাড়াও ইরাক বা সংযুক্ত আরব আমীরশাহীর জয়ী ক্লাবের বিরুদ্ধে খেলবে। কিছু চিন্তাভাবনা করেছেন যে এরকম শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে কী ধরণের মানসিকতা নিয়ে খেলা উচিৎ ?
ওর্তিজ : জানি যারা ওখানে খেলবে, তারা সত্যিই এশিয়ার স্তরে বড়ো শক্তি। ওদের মুখোমুখি হতে গেলে আমাদের পারফরমেন্সগ্রাফ আরও উঁচুতে তুলতে হবে। প্রতিপক্ষ দলগুলির বিরুদ্ধে নিজেদের সেরা হিসাবে তুলে ধরাই চ্যালেঞ্জ আমাদের কাছে।

প্রশ্ন : প্রথম চারে নিজেদের ছাড়া আর কাদের রাখছেন ?
ওর্তিজ : আমার মনে হয বাকি দলগুলো হল, মুম্বই, এটিকে মোহনবাগান ও হায়দরাবাদ।

প্রশ্ন : গ্রুপ পর্যায়ে গত মরশুমে এফসি গোয়া ছিল অপ্রতিরোধ্য। গ্রুপ শীর্ষে থেকে আবার এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ নাকি আইএসএল চ্যাম্পিয়ন হওযা, কোনটাকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন?
ওর্তিজ : আপাতত পরের ম্যাচটা জিততে চাই। গ্রুপ লিগে যতটা বেশি পয়েন্ট তুলে নেওয়া যায় সেদিকেই ফোকাস করেছি। প্লে অফ এলে পরে ভেবে দেখব।

প্রশ্ন : এদেশে থাকার ইচ্ছা আছে নাকি ইউরোপে ফিরতে চান আবার?
ওর্তিজ : আপাতত আমি এদেশে ভালোই আছি। এখানকার খেলার মান আমাকে অবাক করেছে। সত্যিই প্রতিযোগীতামুলক। তবে ভবিষ্যতের কথা কে বলতে পারে!