আইএনটিইউসির হোর্ডিং ঘিরে বিতর্ক, জোড়া অভিযোগ দায়ের

105

কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন জানিয়ে ভবানীপুর কেন্দ্রে আইএনটিইউসির একটি হোর্ডিংকে ঘিরে বিতর্ক দানা বেঁধেছে। ওই পোস্টারে জনৈক দেবাশিস দত্ত নিজেকে আইএনটিইউসির রাজ্য সভাপতি বলে পরিচয় দিয়ে একদিকে সোনিয়া গান্ধি এবং অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ব্যবহার করেছেন। সেই পোস্টারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নির্বাচনে কংগ্রেস ও আইএনটিইউসি কর্মীদের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন। আর একে কেন্দ্র করে বিতর্ক থানা পর্যন্ত গড়িয়েছে। ভবানীপুর থানার কাছেই টাঙানো ওই হোর্ডিংকে কেন্দ্র করে পরপর দুটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

আইএনটিইউসির রাজ্য সভাপতি কামরুজ্জামান কামার জানান, তাঁদের সংগঠনের তরফে ওই ধরনের কোনও হোর্ডিং লাগানো হয়নি। রাজ্যজুড়ে একাধিক ভুয়ো আইপিএস, আইএএস, সিবিআই অফিসার সহ একাধিক ব্যক্তির উদয় হয়েছে। তেমনি নতুন করে ভুয়ো আইএনটিইউসির রাজ্য সভাপতিরও উদয় হয়েছে। এব্যাপারে তাঁরা স্থানীয় ভবানীপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

- Advertisement -

এব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেস নেতা শুভঙ্কর সরকার স্পষ্ট জানিয়ে দেন, অখিল ভারতীয় আইএনটিইউসির সর্বভারতীয় সভাপতি সঞ্জীব রেড্ডি এ রাজ্যের সংগঠনের সভাপতি হিসেবে নিয়োগপত্র দিয়েছেন কামরুজ্জামান কামারকে। সুতরাং তিনিই হলেন প্রদেশ আইএনটিইউসির সভাপতি। এর বাইরে আর কেউ সভাপতি থাকতে পারেন না।

দেবাশিস দত্ত জানান, তিনি সোনিয়া গান্ধির নির্দেশে আইএনটিইউসির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি যেমন, তেমনি এ রাজ্যের রাজ্য সভাপতি হিসেবে নিযুক্ত হয়েছেন। সুতরাং ভবানীপুর কেন্দ্রে যেহেতু কংগ্রেস কোনও প্রার্থী দেয়নি তাই তাঁরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই সমর্থন জানাবেন। আর সেকারণেই তাঁরা নিরপেক্ষতার স্বার্থে সোনিয়া গান্ধির ছবি ব্যবহার করে ওই আহ্বান জানিয়েছেন।

রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতা পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম জানান, এ ধরনের একটি হোর্ডিং তাঁর চোখে পড়েছে। যেহেতু হোর্ডিংয়ে সোনিয়া গান্ধি এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি আছে সেহেতু তা নিয়ে তাঁরা কোনও মাথাব্যথা করতে রাজি নন। তবে বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের এক্তিয়ারভুক্ত। তাই এব্যাপারে যা করার তা নির্বাচন কমিশনের লোকজন দেখবেন। প্রয়োজন হলে তাঁরাই তা খুলে দেবেন।