ইরানি গোলরক্ষকের লিঙ্গ নিয়ে প্রশ্ন

আম্মান : ফের ফুটবলারের লিঙ্গ নিয়ে বিতর্কে ইরানের মহিলা দল।

ইরানের মহিলা দলের গোলরক্ষক জোহরে কুদাইয়ির লিঙ্গ নিয়ে প্রশ্ন তুলে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনকে চিঠি দিল জর্ডনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। এই বিষয়ে তদন্তও দাবি করেছে তারা। যদিও এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে ইরান।

- Advertisement -

ঘটনার সূত্রপাত ২৫ অক্টোবর। আগামী বছর ভারতের মাটিতে বসবে মহিলাদের এশিয়ান কাপের আসর। তার যোগ্যতা অর্জন পর্বের খেলায় মুখোমুখি হয়েছিল জর্ডন ও ইরান। তুল্যমূল্য লড়াইয়ে ম্যাচে গোল করতে পারেনি কোনও পক্ষই। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৪-২ ব্যবধানে জেতে ইরান। জোড়া শট রুখে জয়ের নায়ক হন গোলরক্ষক কুদাইয়ি। এরপরই তাঁর লিঙ্গ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে এএফসি-কে চিঠি লেখেন জর্জনের শীর্ষ ফুটবল কর্তা প্রিন্স আলি বিন আল-হুসেইন। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করার পাশাপাশি ভবিষ্যতে এএফসিকে আরও সজাগ হওয়ার আবেদন জানান তিনি। কুদাইয়ি পুরুষ হয়ে মহিলার ছদ্মবেশে খেলেছেন বলে মনে করছে জর্ডন ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন।

যদিও ইরানের নির্বাচক মারিয়ম ইরান্দুস্ত এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, এধরণের বিতর্ক এড়াতে সম্ভাব্য সমস্ত পদক্ষেপ করা হয়। মেডিকেল দলের তরফে স্কোয়াডের সব সদস্যের যাবতীয় পরীক্ষা করা হয়। এমনকি তাঁদের হরমোনের পরীক্ষাও করা হয়েছে। সমর্থকদের বলছি, এই অভিযোগ নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এএফসি চাইলে আমরা ওদের সমস্ত তথ্য দিয়ে সাহায্য করব। তাঁর দাবি, ইরানের মেয়েদের বিরুদ্ধে হার মানতে পারছে না জর্ডন। ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামলেও হেরেছে তারা। সেই হারের অজুহাত খুঁজতেই কুদাইয়িকে কাঠগড়ায় তোলা হচ্ছে। মিথ্যে অভিযোগ তুলে হারের দায় এড়ানো নতুন কিছু নয়।