অরুণ ঝা, ইসলামপুর : জঙ্গি সংগঠন আইএস নেপালকে লঞ্চ প্যাড করে ইসলামপুর সহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় স্লিপার্স সেল মডিউলের শিকড় ছড়ানোর ছক কষেছে। বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে টেরর ফান্ডিং, মোটা টাকার কাজের টোপ দিযে যুব প্রজন্মের কট্টর অংশ সহ সোশ্যাল মিডিয়ায় কট্টরপন্থীদের নিজেদের বৃত্তের মধ্যে আনার কাজ শুরু করেছে তারা। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, ভারতে নিষিদ্ধ জাকির নায়েকের অনুগামীরাও এই জঙ্গি সংগঠনের টার্গেট। অন্যদিকে ড্রাগ মাফিয়া, লিকার মাফিয়া থেকে শুরু করে অস্ত্র মাফিয়াদের পিছনেও ঢালাও টাকা ঢালার ব্লু-প্রিন্ট তৈরি করা হয়েছে। ইসলামপুরের পুলিশ সুপার শচীন মক্কর বলেন, আইএস জাতীয় স্তরে বড়ো ইশ্যু। তবে বাংলা বা উত্তরবঙ্গে এই সংগঠনের সক্রিয়তার সুনির্দিষ্ট তথ্য আমাদের কাছে নেই।

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করার পর থেকেই পাকিস্তান ভারতে নাশকতার ছক কষতে শুরু করেছে। এই মর্মে ইতিমধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক দেশের বিভিন্ন রাজ্যকে সতর্ক করা হয়েছে। প্রাথমিক অন্তর্তদন্তে জানা গিয়েছে, ইসলামপুর সহ উত্তরবঙ্গকে মূলত করিডর হিসেবে ব্যবহার করার ছক কষেছে আইএস। হাওলার মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা ইতিমধ্যে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় ছড়ানো হয়েছে। সূত্রের খবর, নেপালে বসে পাঁচজনের একটি টিম এই গোটা অপারেশন নিয়ন্ত্রণ করছে। গোয়েন্দাদের একাংশ বলছে, পাকিস্তানি গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের মদত ছাড়া এই এলাকায় আইএসের শিকড় ছড়ানো কোনো মতেই সম্ভব নয়। ইসলামপুরের পুলিশ সুপার বলেন, সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাবে না। তবে উত্তরবঙ্গে আইএস যোগের কোনো ঘটনা আমরা এখনও পাইনি। তবে যে সমস্ত এলাকায় যুবকদের বিভ্রান্ত করার খবর আমরা পাই সেই সব এলাকায় কড়া নজরদারি রযেছে। তাছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া মনিটরিং আমরা শুরু করেছি। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে এই বিষয়ে স্বতন্ত্র কনট্রোল ইউনিট ইসলামপুরেই শুরু হযে যাবে।