টিফিনের জন্য জমানো টাকায় মাস্কহীনদের মাস্ক তুলে দিল ঈশিতা

182

দীপংকর মিত্র, রায়গঞ্জ: প্রতিদিন বাড়ছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা। তবুও গ্রাম ও শহরের অনেক মানুষের মুখে দেখা যাচ্ছে না মাস্ক। মাস্ক ছাড়াই চলাফেরা করছেন তাঁরা।

বিষয়টি খবরের কাগজ ও টিভিতে দেখে রায়গঞ্জের একটি বেসরকারি স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ঈশিতা সরকার। সে তার বাবাকে জানায়, চার মাস ধরে স্কুল বন্ধ রয়েছে, অনেক টাকা জমেছে। সেই জমানো টাকায় মাস্ক কিনে দিতে চাই। মেয়ের এই মানবিক উদ্যোগে রাজি হয়ে যান পুস্তক ব্যবসায়ী বাবা রঞ্জন সরকার ও মা সরস্বতী সরকার। মেয়ের দাবি মতো তার জমানো টাকায় প্রায় দু’হাজার মাস্ক কিনে আনেন রঞ্জনবাবু। সেই মাস্কগুলি ঈশিতা রায়গঞ্জের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাতে তুলে দেয়।

- Advertisement -

টিফিনের জন্য জমানো টাকায় মাস্কহীনদের মাস্ক তুলে দিল ঈশিতা| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

ঈশিতা জানায়, খবরের কাগজে ও টিভিতে দেখছি অনেকের মুখে মাস্ক নেই। অথচ প্রতিদিন বেড়ে চলেছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা। তাই নিজের জমানো টিফিনের টাকা ও বাবার থেকে কিছু টাকা নিয়ে মাকে বলি ওইসব মানুষদের মাস্ক তুলে দেওয়ার জন্য। বাবা ও মা দুজনেই রাজি হয়ে যান। পাশাপাশি সে জানায়, আমার অন্যান্য বন্ধু-বান্ধবীদেরও এই বিষয়ে বলব। সবাই মিলে যদি এগিয়ে আসি তবে মাস্ক ছাড়া আর কাউকে রাস্তায় দেখা যাবে না।

মেয়ের এই উদ্যোগে খুশি রায়গঞ্জের শিল্পীনগরের বাসিন্দা রঞ্জন সরকার। তিনি বলেন, ‘ঈশিতার এই ক্ষুদ্র প্রয়াসে আমরা খুশি। স্কুল বন্ধ থাকলেও টিফিনের জন্য প্রতিদিন ১০ টাকা করে নিয়ে জমিয়ে রাখে। ওর মাথায় এটা ছিল বুঝতে পারিনি আমরা।’ সেই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সম্পাদক কৌশিক ভট্টাচার্য জানান, এভাবেই যদি শিশুদের মধ্যে অসহায় মানুষের পাশে থাকার ইচ্ছা শৈশব থেকে গড়ে ওঠে তবে আগামী দিনে সুস্থ সমাজ গড়ে উঠবে। মানুষের মধ্যে বিপদের দিনে মানুষের পাশে থাকার ইচ্ছা তৈরি হবে।