প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান

294

রায়গঞ্জ: দীর্ঘদিন ধরে জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ না হওয়ায় টিআইসি দিয়ে চলছে বিদ্যালয়ের কাজকর্ম। এরফলে পঠন-পাঠনের ক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। শূন্য পদে প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগের দাবিতে শুক্রবার প্রাথমিক জেলা বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যানকে স্মারকলিপি দিল সংগঠনের সভাপতি গৌরাঙ্গ চৌহান। তিনি বলেন, ‘আমাদের  জেলায় ২০১৪ সালের পর কোনও প্রকার প্রধান শিক্ষক নিযুক্ত না হওয়ার জন্য প্রায় ৭০ শতাংশ প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলি প্রধান শিক্ষক- শিক্ষিকা ছাড়াই চলছে৷’

শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশনামা অনুযায়ী প্রতি বছরে একবার করে প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা নিয়োগ করার কথা বলা হলেও উত্তর দিনাজপুর জেলায় দীর্ঘ সাত বছর ধরে তা বন্ধ রয়েছে৷ প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা ছাড়া অতিরিক্ত কাজের চাপের ফলে একদিকে যেমন বিদ্যালয়গুলি জৌলুস হারাচ্ছে, অপরদিকে তেমনি শিক্ষক শিক্ষিকারা দীর্ঘদিন পদে থাকার পরেও তাদের নিজস্ব প্রাপ্য পদোন্নতি এবং ইনক্রিমেন্ট থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন৷ তাই দ্রুত প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা নিয়োগ করার দাবি এদিন জানানো হয়।

- Advertisement -

প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ ছাড়াও এদিন সংগঠনের তরফে বেশ কিছু তুলে ধরা হয়। সকলের সার্ভিস বুক আপডেট, পিএফ-এর আপডেট হিসেব ২০২১ পর্যন্ত প্রদান, এনআইওএস থেকে ট্রেনিং প্রাপ্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের এইচএস সার্টিফিকেট সমস্যার সমাধান করে তাদের নির্দিষ্ট স্কেলে বেতন প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহন, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের নতুন পে কমিশনের সুবিধা প্রদান প্রভৃতি বিষয় তুলে ধরা হয়। এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন লিয়াকত হোসেন, নিখিল বর্মন, সীমা বন্দ্যোপাধ্যায়, তাপস চট্টোপাধ্যায়, অমিত ঠাকুর, তপন মণ্ডল, ত্রিদিপ রায়, বিপ্লব মণ্ডল সহ অন্যান্যরা।