বৃহস্পতিবার থেকে ধর্মঘটের ডাক দিল জ্যাক

368

আসানসোল: দেশজুড়ে বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত কয়লা শিল্পে তিনদিনের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে সবকটি কেন্দ্রীয় শ্রমিক সংগঠনের যৌথ মঞ্চ জ্যাক বা জয়েন্ট এ্যাকশান কমিটি ও ফেডারেশন। কয়লা শিল্পে ১০০ শতাংশ বিলগ্নিকরণ ও নিলামের মাধ্যমে দেশের ৫০০ কোল ব্লক বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার প্রতিবাদে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শ্রমিক সংগঠনের নেতারা।

গত ১৬ জুন পাঁচ দফা দাবি সহ ধর্মঘটের ডাকার চিঠি পাঠানো হয়েছিল দেশের কয়লামন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশীকেও। শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে রয়েছে ভারতীয় মজদুর সংঘ(বিএমএস), সিটু, আইএনটিইউসি, টিইউসি, এআইটিইউসি ও হিন্দ মজদুর সভা। ইতিমধ্যেই ধর্মঘট প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন ইসিএলের সিএমডি প্রেমসাগর মিশ্র।

- Advertisement -

ইসিএলের দাবি, শ্রমিক সংগঠনগুলি কেন্দ্রীয় নীতির বিরোধীতা করে ধর্মঘটে যাচ্ছে। তার সঙ্গে ইসিএলের কোনও সম্পর্ক নেই। ইসিএলের কোনও কোল ব্লকই নিলাম হচ্ছে না। উল্টে দেশের তাপ বিদ্যুতের চাহিদার কথা ভেবে কেন্দ্র সরকার ইসিএলকে ৩ টি নতুন কোল ব্লক দিচ্ছে। এই ৩ টি নতুন কোল ব্লক চালু হলে ইসিএলের কোলিয়ারি এলাকায় সামাজিক ও আর্থিক উন্নয়ন ঘটবে। ধর্মঘটে গেলে খনিশিল্পে বিপর্যয় নামতে পারে।

সিএমডি বলেন, কয়লার চাহিদার কথা মাথায় রেখে দেশজুড়ে যেখানে কয়লা উৎপাদন হচ্ছে সেখানে এইভাবে ধর্মঘট একেবারেই কাম্য নয়। এআইটিইউসি-র রাজ্য সভাপতি তথা জ্যাকের আহ্বায়ক আরসি সিং বলেন, কমার্শিয়াল মাইনিং করা যাবে না। কোল ইণ্ডিয়ার বেসরকারীকরণে কোনও পদক্ষেপ করা যাবে না৷ সিএমপিডিআইকে কোল ইন্ডিয়া থেকে আলাদা করা যাবে না।

সিটু নেতা বংশগোপাল চৌধুরী বলেন, কোনও ভাবে দেশের রাষ্ট্রীয় সম্পদকে এই ভাবে বিক্রি হতে আমরা দেব না। এই জন্যই বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত।

তবে এই ধর্মঘটের বিরোধীতা করছে তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি। আইএনটিটিইউসি অনুমোদিত কেকেএসির সাধারণ সম্পাদক হরেরাম সিং বলেন, এইরাজ্যে ধর্মঘট নামক কর্মসংস্কৃতি বন্ধ হয়েছে। কেন্দ্রীয় নীতির বিরোধীতা করলেও আমরা ধর্মঘটে যাচ্ছি না। ধর্মঘটের বিরোধীতায় রাস্তায় নামা হবে।