বাড়ল গুরুত্ব, দলের জাতীয় মুখপাত্রের পদ জিতেন্দ্রকে

136

আসানসোল: দু’মাস পর আবার নতুন দায়িত্ব নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে গুরুত্ব ফিরে পেলেন আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র তথা পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক জিতেন্দ্র তেওয়ারি। মঙ্গলবার তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে তাঁকে দলের জাতীয় মুখপাত্র বা রাষ্ট্রীয় স্পোকসম্যান হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে। কিছুদিন আগে থেকেই জাতীয় স্তরের একাধিক টেলিভিশনে তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে দেখা যাচ্ছিল দলের হয়ে রাজনৈতিক বিতর্কে অংশ নিতে। তখন থেকেই অনেকেই মনে করেছিলেন তাঁকে দলের জাতীয় স্তরে মুখপাত্র দল ঘোষণা করা হতে পারে।

এদিন দলের তরফে নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পরে জিতেন্দ্র তেওয়ারি বলেন, ‘আমি কৃতজ্ঞ মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রীর কাছে। তিনি আমার উপর ভরসা রেখে যে দায়িত্ব নতুন করে দিয়েছেন তা অবশ্যই আমি পালন করে আমার যোগ্যতা প্রমাণ করার চেষ্টা করব। প্রতিপক্ষ যারা থাকেন তাঁরা নানা ধরনের মিথ্যা অভিযোগ নানান ভাবে তুলে ধরেন। সেগুলো সমানভাবে খন্ডন করব দলের তরফে।

- Advertisement -

জিতেন্দ্র তেওয়ারির এই নতুন পদের খবর শিল্পাঞ্চলে পৌঁছোতেই তাঁর সমর্থকদের মধ্যে খুশির হাওয়া বয়ে যায়। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর আচমকা শহরের উন্নয়ন সংক্রান্ত বিষয়ে একাধিক প্রশ্ন তুলে প্রথমে আসানসোল পুরনিগমের পুর প্রশাসক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন। পরে দলের জেলা সভাপতির পদও ছেড়ে দেন। কিন্তু মাত্র দুদিনের মধ্যেই তিনি কলকাতায় রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলে নিজের ভুল স্বীকার করেন। তারপর তিনি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও সব শেষ দলীয় সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন ও দলে কাজকর্ম শুরু করেন। এরপর কলকাতায় তৃণমূল ভবনে হিন্দি সহ বিভিন্ন ভাষাভাষী বুদ্ধিজীবীদের ও সংগঠনের প্রতিনিধিদের নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী সম্মেলন করেছিলেন। সেই মঞ্চেই দেখা গিয়েছিল সুব্রত বক্সী ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশেই বসে থাকতে জিতেন্দ্র তেওয়ারিকে।