কৈলাসের ‘হোটেলে’ জিতেন্দ্রর নৈশভোজ নিয়ে জল্পনা

266

কলকাতা: দোরগোড়ায় নির্বাচন। সেই নির্বাচনে বিজেপির কী রণনীতি হবে সেই নিয়ে বাইপাসের একটি হোটেলে সোমবার বৈঠক ছিল। আর বিজেপির সাংগঠনিক বৈঠক চলাকালীনই সেখানে হাজির হলেন আসানসোলের তৃণমূল নেতা জিতেন্দ্র তিওয়ারি৷যা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই নতুন করে জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

এ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ জানান, ‘দলের বৈঠকে জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে জানানোর বা তাঁর থাকার কোনও প্রশ্ন নেই। কারণ উনি দলের কেউ নন। কেন এসেছিলেন কোথায় এসেছিলেন আমাদের জানা নেই।’

- Advertisement -

কিছুদিন আগে পর্যন্ত লাগাতার দলের বিরুদ্ধে, পুরমন্ত্রী তথা মেয়র ফিরহাদ হাকিমের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। পরবর্তীতে তৃণমূল ত্যাগও করেছিলেন তিনি। সেই সময় স্বাভাবিকভাবেই কানাঘুঁষো শুরু হয়েছিল যে ঘাসফুল ছেড়ে এবার পদ্মশিবিরে নাম লেখাতে চলেছেন তিনি। কিন্তু বাবুল সুপ্রিয় সহ একাধিক নেতা জিতেন্দ্র তিওয়ারির এই বিজেপি যোগের জল্পনাকে ভালভাবে নেননি। বরং সাফ জানিয়েছিলেন আসানসোলের প্রাক্তন মেয়রের গেরুয়া শিবিরে যোগে মন থেকে সায় নেই।

এই পরিস্থিতিতে সোমবার রাতে বাইপাসের ধারের একটি পাঁচতারা হোটেল থেকে বেরতে দেখা যায় জিতেন্দ্র তিওয়ারি, তাঁর স্ত্রী ও কন্যাকে। যে হোটেলে সাংগঠনিক বৈঠক চলছে বিজেপির সেখানে জিতেন্দ্র তিওয়ারির উপস্থিতি নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই না না প্রশ্ন যেমন উঠতে শুরু করেছে, তেমনই নানা জল্পনাও দানা বাঁধতে শুরু করেছে। যদিও বিষয়টি সম্পূর্ণ কাকতালীয় বলেই জিতেন্দ্র তিওয়ারি দাবি করেছেন।

জিতেন্দ্র দাবি করে বলেন, ‘এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সভা করেছি। শীঘ্রই দলের কাজে ফিরব। বহুদিন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাইনি। তাই পরিবারের সঙ্গে খেতে এসেছি।’

সূত্রের খবর, কলকাতার ওই হোটেলেই বিজেপির পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় আছেন। মঙ্গলবার ওই হোটেলেই বিজেপির আসানাসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়ের সাথে বৈঠক রয়েছে। আর তার আগে সোমবার রাতে সেই হোটেলেই জিতেন্দ্রর সপরিবারে নৈশভোজ রাজনীতিতে কোন অংকের সমীকরণ তৈরি করে তা এখন সময়ই বলবে।