সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় জেএনইউ, এগিয়ে কলকাতা ও যাদবপুর

465

প্রসেনজিৎ দাশগুপ্ত, নয়াদিল্লি: দেশজুড়ে পঠনপাঠনে উৎকর্ষতায় বাজিমাত করে সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় পৌঁছাল দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের অধীন এই বিশেষ শিক্ষাগত মাননির্ণায়ক সংস্থা ন্যাশনাল ইন্ডিয়ান র‍্যাঙ্কিং ফ্রেমওয়ার্ক (এনআইআরএফ)-র রিপোর্ট অনুযায়ী শিক্ষার উৎকর্ষতায় আবারও দেশের সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় উঠে এসেছে জেএনইউ।

এনআইআরএফ-এর সমীক্ষায় এই মুহুর্তে, বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়। জেএনইউ ও বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটি যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে। গত বছরেও, আইআইএসসি বেঙ্গালুরুর ছিল তালিকার শীর্ষে। এবছরও নিজ স্থান পাকা রাখল তারা। এনআইআরএফ সূত্র অনুযায়ী, দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয় তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। ষষ্ঠ স্থানে হায়দরাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়। সপ্তম স্থানে রয়েছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। চতুর্থ স্থানে আছে অমৃত বিশ্ব বিদ্যাপীতম,  জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া দশম স্থানে রয়েছে। আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটি সতেরো স্থানে রয়েছে।

- Advertisement -

সারাদেশ জুড়ে ১০০টিরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাদের পঠনপাঠন, পড়ার মান, ক্লাসরুম স্ট্র‍্যাটেজি, শিক্ষক-ছাত্র সম্পর্ক ও সর্বাঙ্গীণ পরিকাঠামোর উপর ভিত্তি করে বাছাই করে এনআইআরএফ। পরিসংখ্যান জানিয়েছে, সর্বোৎকৃষ্টতার নিরিখে সারাদেশে সেরা মাদ্রাজ আইআইটি, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে আইআইএসসি বেঙ্গালুরু ও দিল্লি আইআইটি। এই নিরিখে দেশের সেরা কলেজ দিল্লির ঐতিহ্যবাহী মিরাণ্ডা হাউস। ফার্মা-টেক ক্যাটাগরিতে দেশের সেরা দিল্লির জামিয়া হামদর্দ ও ইঞ্জিনিয়ারিং-এ সেরা আইআইটি মাদ্রাজ। ম্যানেজমেন্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে সেরা তিনটির তালিকায় আছে যথাক্রমে আইআইএম আহমেদাবাদ সহ আইআইএম বেঙ্গালুরু ও আইআইএম জোকা, কলকাতা। এই বিভাগেই পঞ্চম স্থানে রয়েছে খড়গপুর আইআইটি। দেশের সেরা মেডিকেল কলেজের শীর্ষে আছে দিল্লি ‘এইমস’, দ্বিতীয় স্থানে পিজিআইএমইআর চণ্ডিগড় এবং তৃতীয় ভেলোর ক্রিস্টিয়ান মেডিকেল কলেজ।

প্রসঙ্গত, প্রতিবছর এনআইআরএফের উদঘাটন করেন দেশের রাষ্ট্রপতি। গত বছর রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এই তালিকা প্রকাশ্যে আনেন। কিন্তু এই বছর করোনার জেরে দেরিতে প্রকাশ পেল সেরার এই তালিকা। আজ কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল এই তালিকা প্রকাশিত করে বলেন, ‘পঠনপাঠনে ভারতীয় শিক্ষার্থী এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি বিশ্বের মধ্যে তাদের বিবিধ উৎকর্ষতা বজায় রেখেছে। ভবিষ্যতে গুরুর মত ভারতীয় সমৃদ্ধশালী শিক্ষাসংস্কৃতি গোটাবিশ্বকে পথ দেখাবে।’ আজ দেশের সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান তিনি।