শ্রমিকদের মজুরি বকেয়া রেখে বিনা নোটিশে চা বাগান ছাড়ল কর্তৃপক্ষ

411

জলপাইগুড়ি, ১২ অক্টোবরঃ শ্রমিকদের মজুরি বকেয়া রেখে বিনা নোটিশে বাগান ছেড়ে চলে গেলেন ম্যানেজার ও সহকারি ম্যানেজাররা। দীপাবলির আগে হঠাত্ই অচল হয়ে পড়ল জলপাইগুড়ি কোতয়ালি থানার অন্তর্গত জয়পুর চা বাগান। এতে সমস্যায় পড়েছেন শ্রমিকরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে শ্রমিকদের মজুরি প্রদানের কথা ছিল বাগান কর্তৃপক্ষের। কিন্তু পুজোর বোনাস এবং মজুরি একই দিনে পরে যাওয়ার কারণে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের জানায়, কয়েকদিনের মধ্যে বকেয়া মজুরি প্রদান করা হবে। কর্তৃপক্ষের দেওয়া দিন অনুযায়ী শুক্রবার শ্রমিকরা বকেয়া মজুরি আনতে বাগানের অফিসে গেলে তাঁদের জানিয়ে দেওয়া হয়, চলতি মাসের ১৫ তারিখ বকেয়া মজুরি প্রদান করা হবে। সেই সময় শ্রমিকরা প্রশ্ন তোলেন, বকেয়া মজুরি যদি ১৫ অক্টোবর দেওয়া হয় তাহলে দু’বারের মজুরি কী একসঙ্গে প্রদান করবেন কর্তৃপক্ষ? শ্রমিকদের অভিযোগ, সেই সময় কর্তৃপক্ষ সাফ জানিয়ে দেয়, একটি মজুরি প্রদান হবে অপরটি মাসের শেষে দেওয়া হবে। এরপরই শ্রমিকরা ম্যানেজারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। পরবর্তীতে শ্রমিকদের চাপের মুখে পড়ে কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের লিখিত দেন একটি মজুরি ১৪ অক্টোবর এবং অপরটি ১৫ অক্টোবর প্রদান করা হবে।

- Advertisement -

শ্রমিকদের মজুরি বকেয়া রেখে বিনা নোটিশে চা বাগান ছাড়ল কর্তৃপক্ষ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য নারায়ণ ছেত্রী বলেন, ‘রাতে বাগানের নিরপত্তার দায়িত্বে থাকা চৌকিদার এসে আমাদের জানান, ম্যানেজাররা রাতেই বাগান ছেড়ে চলে গিয়েছেন। আমরাও রাতে ম্যানেজারের বাংলো এবং অফিসে এসে দেখতে পাই সেখানে কেউ নেই। এমনকি কী কারণে কর্তৃপক্ষ বাগান ছেড়ে চলে গেলেন তাও কোনো নোটিশ দিয়ে জানানো হয়নি। এই পরিস্থিতিতে বাগানের প্রায় হাজার শ্রমিক চরম সমস্যায় পড়েছেন।’ দ্রুত বাগানের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার দাবি জানিয়েছেন নারায়ণ ছেত্রী। তাঁরা বিষয়টি প্রশাসনের নজরে এনেছেন বলেও জানানো হয়। এবিষয়ে জেলাশাসক অভিষেক তেওয়ারি জানান, কী কারণে এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে চা বাগানে তা খোঁজ খবর নিয়ে দেখবেন তিনি।