গুরুগ্রাম, ২৩ অক্টোবরঃ ১৩ অক্টোবর গুরুগ্রামের সেক্টর ৪৯-এর আর্কেডিয়া মার্কেটে এক বিচারকের স্ত্রী ও ছেলের উপর গুলি চালিয়েছিল বিচারকের দেহরক্ষী। এই ঘটনার পরের দিনই মারা যান বিচারকের স্ত্রী। আজ ভোর ৪টে নাগাদ মোদান্ত হাসপাতালে তাঁর জখম ছেলেরও মৃত্যু হল। এই খবর জানার পর মৃত ছেলের অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নেন বিচারক।

দেহরক্ষী মহিপালের গুলিতে জখম হয়েছিল হরিয়ানার বিচারক কিষানকান্ত শর্মার ছেলে ধ্রুব(১৮)। ব্রেন ডেথ হয়েছিল বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। হাসপাতালের তরফে আজ সকালে মৃত্যুর খবর জানানো হয়। ছেলের হৃদপিন্ড, লিভার ও কিডনি দান করেন বিচারক কিষানকান্ত শর্মা।

বর্তমানে জেলে রয়েছে অভিযুক্ত মহিপাল। প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, বিচারকের পরিবারের অভব্য আচরণে ক্ষুব্ধ ছিল সে।