কালীপুজোকে ঘিরে সম্প্রীতির নজির রাজগঞ্জে

127

রাজগঞ্জ: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল নিদর্শন বহন করে চলেছে রাজগঞ্জের সন্ন্যাসীকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের বিহারুহাটের বিহারু মহম্মদের জোড়া কালীর পুজো। ধর্মীয় ভেদাভেদ ভুলে স্থানীয় বাসিন্দা চুমানু সাহার সহযোগিতায় জোড়া কালীর পুজো করেন বিহারু মহম্মদের পরিবার। শতাধিক বছর আগে পূর্বপুরুষের শুরু করা কালীপুজো এখনও ধরে রেখেছেন তাঁর নাতি-পুতিরা। বিহারুহাটে রয়েছে স্থায়ী পাকা কালী মন্দির।

জানা গিয়েছে, বিহারু মহম্মদ ১৯১২ সালে কালীপুজো শুরু করেছিলেন। তাঁর নাম থেকেই এলাকার নাম বিহারুহাট। তাঁর নাতি শাহাদত আলি জানান, জোড়া কালীপুজো উপলক্ষ্যে আগে জোড়া পাঁঠা ও জোড়া পায়রা বলি দেওয়া হলেও এখন পাঁঠা ও পায়রা উৎসর্গ করা হয়। পুজোর দিন তাঁরা উপোস থেকে নিয়ম নিষ্ঠা সহকারে পুজো করেন। পরিবারের আরেক সদস্য রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘পুজো করতে এলাকার হিন্দুদের পাশাপাশি মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। বিহারুহাটের মেলার জন্য এলাকার মানুষ সারা বছর অপেক্ষা করে থাকেন। তবে করোনা পরিস্থিতিতে এবছর ধুমধাম করে পুজো হচ্ছে না। মেলার আয়োজনও বন্ধ রয়েছে।’

- Advertisement -