অসমের কামাখ্যাদেবী পুজিত হচ্ছেন ডাউয়াগুড়িতে

230

ঘোকসাডাঙ্গা, ২৩ নভেম্বরঃ দুর্গাপুজাে, কালীপুজাের পর ফের অসমের কামাখ্যা মায়ের আরাধনা শুরু হয়েছে মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের রুইডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের ডাউয়াগুড়ি গ্রামে। ডাউয়াগুড়ি গ্রামের জনৈক গ্যাদলা বর্মনের বাড়িতে অনুষ্ঠিত এই পুজোকে ঘিরে আনন্দে মেতে উঠেছেন এলাকার মানুষ। সোমবার ছিল নবমী।গ্যাদলা বর্মনের বাড়িতে নবমী পুজোর আয়োজন করা হয়েছিল।

পুজোর বিষয়ে অশীতিপর গ্যাদলা বর্মন জানান, লতাপাতা গ্রামের সাহানান বর্মনের মেয়ে আলোন বর্মনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিয়ের পর তার স্ত্রী আলোন বর্মন কামাখ্যাদেবীর পুজো নিয়ে স্বপ্নাদেশ পান। আর তারপর থেকেই ঘট বসিয়ে তিনি কামাখ্যা মায়ের পুজো শুরু করেন। দেবীর স্বপ্নাদেশ পূরণ করতে ও পরিবারের সুখ শান্তি বজায় রাখতে পরে প্রতিমা বসিয়ে পুজো শুরু হয়।

- Advertisement -

এবছর এই পুজো ২৮ তম বর্ষে পা দিল। গত ২৭ বছর থেকে এই মূর্তি পুজো হচ্ছে। বাড়ির উঠোনে তৈরি মন্দিরে ব্রহ্মা ও বিষ্ণুর নাভি থেকে বের হওয়া পদ্মের মাঝখানে আসীন দেবী। কামাখ্যাদেবীর ছয় মাথা ও ১২ হাত বিশিষ্ট। জানা গিয়েছে, দুর্গা সহ দেবীর ৬টি রূপের প্রকাশ ঘটেছে এই মূর্তিতে। ডাউয়াগুড়ি গ্রামে প্রায় তিনশো পরিবারের বাস। গ্রামবাসীদের কাছ থেকে জানা যায়, প্রতিবছর এই পুজোয় জোড়া পাঠা বলি দেওয়া হয়। ভক্তরা পায়রাও বলি দেন।

দশমীর দিন বিসর্জনের মাধ্যমে পুজোর সমাপ্তি ঘটে। নবমীর দিনে খিচুড়ি ভোগ বিতরণ করা হয়। বর্মন পরিবারের সব সদস্যই এখন পুজোর কাজে ব্যস্ত। প্রতিবেশী থেকে শুরু করে এলাকার মানুষদের মধ্যেও পুজো উপলক্ষ্যে উৎসাহের শেষ নেই। তাই কালীপুজাে, দুর্গাপুজাের পর ফের পুজোর উৎসবে খুশির জোয়ারে ভেসেছেন ডাউয়াগুড়িবাসী।