কানহাইয়া কুমারকে এনে বাজিমাত করতে চান শ্রীকুমার

106

রণবীর দেব অধিকারী, ইটাহার : মোদি-শার চোখে তিনি টুকরে টুকরে গ্যাং লিডার। আবার যুবসমাজের একটা বড় অংশের কাছে তিনি যৌবনের দূত। বছর খানেক আগে দেশজুড়ে এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে ঝড় তুলেছিলেন তিনি। এবার বাংলার নির্বাচনি প্রচারে তুফান তুলতে সেই যুব আইকন কানহাইয়া কুমারকেই হাতিয়ার করতে চাইছে সিপিআই। ইটাহার বিধানসভা কেন্দ্রে সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত সিপিআই প্রার্থী শ্রীকুমার মুখোপাধ্যায়ের ভোট প্রচারে কানহাইয়াকে আনার ব্যাপারে তোড়জোড় শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই। এখনও দিনক্ষণ স্থির হয়নি। তবে প্রাথমিকভাবে কানহাইয়া সবুজ সংকেত জানিয়েছেন বলে সিপিআই সূত্রে জানা গিয়েছে।

সিপিআইয়ের জেলা কমিটির সদস্য সন্দীপকুমার ঝা বলেন, আমরা পার্টির তরফে কানহাইয়া কুমারকে ভোটের প্রচারে আনার জন্য সর্বসম্মতিক্রমে প্রস্তাব গ্রহণ করেছি। বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে গোটা দেশের মধ্যে কানহাইয়া কুমার সবচেয়ে জনপ্রিয় যুব আইকন। জাতি-ধর্ম, রাজনীতি নির্বিশেষে দেশজুড়ে যুবসমাজের মধ্যে তাঁর বিরাট সংখ্যায় ফ্যান ফলোয়ার রয়েছে। তাঁর কথায় যেভাবে উদ্বুদ্ধ হয় যুবসমাজ, তা সাম্প্রতিককালে সর্বভারতীয়স্তরে আর কোনও যুবনেতার ক্ষেত্রে দেখা যায়নি। তিনি প্রচারে এলে আমাদের প্রার্থী যে বাড়তি মাইলেজ পাবেন, তা বলাই বাহুল্য। তাছাড়া কানহাইয়া কুমার আমাদের দলের জাতীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য। ফলে খুব স্বাভাবিক কারণেই আমরা তাঁকে স্টার ক্যাম্পেইনার হিসাবে ভোট প্রচারে চাইছি।

- Advertisement -

শ্রীকুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, কানহাইয়া কুমার আমাদের দলের একজন স্টার ক্যাম্পেইনার। আমরা তাঁকে প্রচারে চেয়েছি। প্রাথমিকভাবে তাঁর সঙ্গে আমার এই বিষয়ে একপ্রস্থ কথা হয়েছে। প্রচারে আসার ব্যাপারে তিনি সবুজ সংকেতও দিয়েছেন। পাশাপাশি দলের নিয়মনীতি অনুযায়ী সমস্ত প্রক্রিয়া মেনে রাজ্য কমিটির মাধ্যমে কানহাইয়া কুমারকে অন্যতম প্রধান প্রচারক হিসাবে চাওয়া হয়েছে। তবে তাঁকে আরও অনেক জায়গায় যেতে হবে। সেই ব্যস্ততার ফাঁকেই ইটাহারে যাতে অন্তত একদিনের জন্য তাঁকে প্রচারে আনা যায় সেই চেষ্টা চলছে।

জেন ওয়াই বা নেটিজেনদের কাছে তাঁর জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। কানহাইয়ার সেই ক্রেজকেই এবার ক্যাশ করতে চাইছেন জোটের প্রার্থী শ্রীকুমার। বছর খানেক আগে পাহাড় থেকে সাগর এনআরসি বিরোধী যাত্রায় অংশ নিয়ে ইটাহারে এসেছিলেন বেগুসরাইয়ের তরুণ তুর্কি কানহাইয়া কুমার। ইটাহার চৌরাস্তা মোড়ে আয়োজিত কানহাইয়ার সেই সভার পেছনেও অন্যতম প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন ইটাহারের প্রাক্তন বিধায়ক তথা সিপিআইয়ের কৃষকসভার রাজ্য সহ সভাপতি শ্রীকুমার মুখোপাধ্যায়। সেই সভাতে কানহাইয়ার বক্তৃতার প্রতি তরুণ সমাজের আকর্ষণ নজর এড়িয়ে যায়নি স্থানীয় সিপিআই নেতৃত্বের। একুশের নির্বাচনে ইটাহার কেন্দ্রে জোট প্রার্থীর প্রধান দুই প্রতিপক্ষ পদ্ম আর জোড়াফুল। ভোট যুদ্ধে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে সংযুক্ত মোর্চার তরফে একাধিক রথী-মহারথীকেই প্রচারে আনা হবে বলে প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে দুই ফুলকে নির্মূল করতে কাস্তের ধারে নয়, যুবসমাজের মগজাস্ত্রে শান দিতে চায় সিপিআই।