সেক্স টেপ মামলায় বেঞ্জিমাকে কারাদণ্ড

প্যারিস : অশ্লীল ভিডিও নিয়ে সতীর্থকে ব্ল্যাকমেলের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হলেন করিম বেঞ্জিমা। তাঁকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ফ্রান্সের এক আদালত। তবে স্থগিত কারাদণ্ড হওয়ায় এখনই হাজতে যেতে হচ্ছে না এই তারকা ফরোয়ার্ডকে।

২০১৫ সালে প্রথমবার এই ঘটনার কথা জানাজানি হয়। ফ্রান্সের তৎকালীন জাতীয় দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ম্যাথু ভ্যালবুয়েনাকে ব্ল্যাকমেলের অভিযোগে নাম জড়ায় বেঞ্জিমার। ভ্যালবুয়েনা দাবি করেন, তাঁর অশ্লীল ভিডিও আছে দাবি করে কিছু ব্যক্তি অর্থ দাবি করে। সেখানে মধ্যস্থতা করেন বেঞ্জিমা। পরে অবশ্য দুজনেই নিজেদের সম্পর্কে উন্নতি হওয়ার কথা জানান।

- Advertisement -

তবে অভিযোগের প্রেক্ষিতে জাতীয় দল থেকে সাড়ে পাঁচ বছরের জন্য বাদ পরেন বেঞ্জিমা। অবশেষে হটাৎ করেই চলতি বছর ইউরোর আগে দলে ফেরেন তিনি। প্রতিযোগিতায় দেশের সেরা ফুটবলার ছিলেন তিনিই। সম্প্রতি ফ্রান্সের নেশনস লিগ জয়ের ক্ষেত্রেও বড় ভূমিকা নিয়েছেন। জাতীয় দলের জার্সিতে প্রত্যাবর্তনের পর ৯ গোল করেছেন বেঞ্জিমা।

তবে আদালতের এমন রায়ে পর ফের বেঞ্জিমার ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ খেলতে বর্তামানে মলডোভার রয়েছেন তিনি। এক বছর স্থগিত কারাদণ্ডের পাশাপাশি এই তারকাকে ৮৪ হাজার ইউরো জরিমানাও করা হয়েছে। এদিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন তাঁর আইনজীবীরা।

আইনজীবীদের একজন সিলভিয়ার করমিয়ার সংবাদমাধ্যমকে জানান, এই রায়ে তাঁরা বিস্মিত। দ্রুতই উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হবেন। অবশ্য ফরাসি ফুটবল কর্তা নোয়েল লা গ্রায়েতের দাবি, এই রায়ের প্রভাব বেঞ্জিমার জাতীয় দলের হয়ে খেলার ওপর পড়বে না। বেঞ্জেমা পাশে পাচ্ছেন ক্লাব কর্তৃপক্ষকেও।