লালার নমুনা সংগ্রহ না হলেও কাটোয়া পুরসভার সাফাই কর্মীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ

267

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: করোনা পরীক্ষার জন্য যে ব্যক্তির লালার নমুনা সংগ্রহ হয়নি তারও রিপোর্ট এল পজিটিভ। এমনটা শুনে ভুতুরে কাণ্ড বলে মনে হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তা নয়। বাস্তবেই এমনটাই ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়ায়। যা নিয়ে শোরগোল পড়ে যেতেই নড়ে চড়ে বসে স্বাস্থ্য দপ্তর ও কাটোয়া পুরসভা কর্তৃপক্ষ।

জানা গিয়েছে, কাটোয়া পুরসভা কর্তৃপক্ষ তাঁদের সাফাই কর্মীদের করোনা পরীক্ষা কারানোর উদ্যোগ নেয়। সেই মতো ৩৫ জন সাফাই কর্মীর নামের তালিকা তৈরি হয়। পুরসভা কর্তৃপক্ষ সাফাই কর্মীদের নামের সেই তালিকা কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়। যেদিন তাঁদের শারীরিক পরীক্ষা ও লালার নমুনা সংগ্রহের দিন স্থির হয় সেদিন একজন মারা যান। তাঁর সৎকার কার্য করতে চলে যান ১৮ জন সাফাই কর্মী। ফলে সেদিন ওই ১৮ জন স্বাস্থ্য কর্মী করোনা পরীক্ষার জন্য হাজির হতে পারেননি। তাঁদের লালার নমুনাও সংগ্রহ করা হয়নি। অথচ তাঁদের মধ্যে একজন স্বাস্থ্য কর্মীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। আর এই ভুতুরে রিপোর্ট নিয়েই বৃহস্পতিবার চাঞ্চল্য ছড়ায় কাটোয়ায়। যার লালার নমুনা আদৌ সংগ্রহ করা হয়নি তার কিভাবে রিপোর্ট পজিটিভ আসতে পারে তার উত্তর এখনও হাঁতরে বেড়াচ্ছেন কাটোয়া পুরসভা কর্তৃপক্ষ।

- Advertisement -

ঘটনায় বিস্মিত কাটোয়া পুরসভার প্রশাসক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়। তিনি কাটোয়া মহকুমা হাসপাতাল সুপারকে ঘটনার কথা জানান। এই প্রসঙ্গে হাসপাতাল সুপার চিকিৎসক রতন শাসমল জানিয়েছেন, বিষয়টি তিনি খোঁজ নিয়ে দেখছেন।