কেভিনের ইউরো খেলা নিয়ে প্রশ্ন

পোর্তো : কেরিয়ারের সবচেয়ে বড় ম্যাচটা ভুলে যেতে চাইবেন কেভিন ডেব্রুইন। ট্রফি তো এলই না, উল্টে চোট পেয়ে ইউরো কাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার মুখে দাঁড়িয়ে এই বেলজিয়ান মিডফিল্ডার।

শনিবার রাতে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির ক্যাপ্টেনের দায়িত্ব ছিল ডেব্রুইনের উপর। চিরচেনা মাঝমাঠ থেকে সরিয়ে তাঁকে ফলস নাইন হিসেবে খেলান সিটি কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা। চাপের মুখে সেই দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে পারলেন না। এদিন ৬০ মিনিট মাঠে ছিলেন। কিন্তু নিখুঁত লক্ষ্যে বাড়ানো ট্রেডমার্ক পাসগুলো দিতে দেখা যায়নি। তাঁর মাত্র ৬৭ শতাংশ পাস লক্ষ্যে ছিল। উল্টে ১৪ বার বিপক্ষের কাছে পজেশন হারালেন। পা দিলেন বিপক্ষের অফসাইড ট্র‌্যাপেও। চেলসি কোচ টমাস টুচেলের স্ট্র‌্যাটেজি একপ্রকার বোতলবন্দী করে রাখল তাঁকে।

- Advertisement -

সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা খেলেন ৬০ মিনিট নাগাদ। চেলসির জার্মান ডিফেন্ডার আন্তোনিও রুদিগারের সঙ্গে সংঘর্ষে নাকে-চোখে আঘাত নিয়ে মাঠ ছাড়লেন। পরে পরীক্ষা করে চিকিৎসকরা জানান, তাঁর নাকের হাড় ভেঙেছে। একইসঙ্গে বাঁ চোখের পাশে একটি হাড়ে চোট লেগেছে। স্বাস্থ্যপরীক্ষার পর ডেব্রুইনের টুইট, সবেমাত্র হাসপাতাল থেকে ফিরলাম। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন নাকের হাড় এবং বাঁদিকের অরবিটাল (অক্ষিগোলকের হাড়) ভেঙেছে। আমি এখন সুস্থ আছি। ফাইনালের পারফরমেন্স নিয়ে হতাশ। তবে আমরা পুরোনো রূপে ফিরব।

এই পরিস্থিতিতে ডেব্রুইনের ইউরো কাপ খেলা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। ইডেন হ্যাজার্ডের অফ ফর্মের জেরে বেলজিয়ামের দায়িত্ব অনেকটাই তাঁর উপর। ইউরোয় তাঁদের গ্রুপে ফিনল্যান্ড, রাশিয়া ও ডেনমার্কের মতো প্রতিপক্ষ আছে। খাতায়-কলমে বেলজিয়াম এগিয়ে থাকলেও রাশিয়া বা ডেনমার্ক চমকে দিতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতিতে চোট সারিয়ে তিনি আদৌ খেলতে পারবেন কি না স্পষ্ট নয়। সেক্ষেত্রে চাপ বাড়বে বেলজিয়ামের। ১৩ জুন অভিযান শুরু করবে তারা, প্রতিপক্ষ রাশিয়া।