হলদিবাড়ি, ১৯ নভেম্বরঃ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে ফ্ল্যাটের চাবি বিতরণ অনুষ্ঠান বয়কট করল  ছিটের বাসিন্দারা। তাদের দাবি ছিটমহল পুনর্বাসনের সমস্ত প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ রাজ্য সরকার। এমনই অভিযোগ তুলে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে পুনর্বাসনের ফ্ল্যাট বাড়ির চাবি নেওয়ার অনুষ্ঠান বয়কট করলেন সাবেক ছিটের বাসিন্দারা। ফলে অস্বস্তিতে পরে জেলা প্রশাসন। সোমবার কোচবিহারে মুখ্যমন্ত্রীর জানান, হলদিবাড়িতে ২৪কোটি ৪১লক্ষ টাকা খরচ করে ১২০টি ফ্ল্যাট বাড়ি নির্মাণ করেছে প্রশাসন।কিন্তু আদপে ফ্ল্যাট বাড়ি নির্মিত হয়েছে ১০৪টি। তা নিয়েই সমস্যার সূত্রপাত। তাদের আরও অভিযোগ ছিটমহল বিনিময় চুক্তির পাশাপাশি তাদের পুনর্বাসনের জন্য পরিবার পিছু পাঁচ লক্ষ টাকা, গবাদি পশু দেবার কথা। এখনো সেসব কিছুই পাননি তারা। যদিও তাদের দাবির সমর্থনে কোন নথিপত্র দেখাতে পারেনি তারা।
মঙ্গলবার দুপুরে হলদিবাড়ি সীমান্ত ভবনে চাবি বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ব্লক প্রশাসন। উপস্থিত ছিলেন দুই বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান ও উদয়ন গুহ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কোচবিহারের অতিরিক্ত জেলাশাসক জ্যোতির্ময় তাঁতি, মেখলিগঞ্জের মহকুমা শাসক রামকুমার তামাং, হলদিবাড়ির বিডিও সঞ্জয় পন্ডিত প্রমুখ। কিন্তু নির্ধারিত সময় অতিক্রান্ত হলেও অনুষ্ঠানে হাজির হয়নি কোন সাবেক ছিটমহলবাসী। প্রশাসনের তরফে দফায় দফায় চেষ্টা করা হলেও চাবি নিতে অস্বীকার করে তারা। অনুষ্ঠানটি সম্পূর্ণ ব্যার্থ হয়। এবিষয়ে কোচবিহারের অতিরিক্ত জেলাশাসক জ্যোতির্ময় তাঁতি বলেন, ‘সাবেক ছিটবাসীরা যে সমস্ত দাবি করছেন সেইরকম কোন সরকারি নির্দেশিকার কথা আমার জানা নেই। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী ম্যাডাম কোচবিহার জেলায় হলদিবাড়ি সহ মোট ২০১টি ফ্ল্যাট বাড়ি নির্মাণের কথাই বলতে চেয়েছেন’।