খড়িবাড়ি কাণ্ডে নয়া তথ্য প্রকাশ্যে

50

খড়িবাড়ি: খড়িবাড়ি জালিয়াতি কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত মাধব সিংহ ভুয়ো কৃষি দপ্তরেরে কর্মীর পরিচয় দিয়ে জালিয়াতি করত বলে অভিযোগ উঠেছে। যদিও খড়িবাড়ি ব্লক সহ-কৃষি অধিকর্তা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
খড়িবাড়ির জালিয়াতি কাণ্ডে প্রতারকরা বুড়াগঞ্জের প্রত্যন্ত গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে আঁধার কার্ড, ভোটের ফটো, প্যানকার্ড সংগ্রহ করত। তাদের না জানিয়েই প্রতারকরা ব্যাংকর্মীদের সঙ্গে যোগসাজশে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে উপভোক্তাদের অজান্তেই লক্ষ লক্ষ টাকা লেনদেন করা হত বলে খবর। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ব্যাংকের এটিএম-সহ ব্যাংকের পাসবই প্রতারক চক্রের কাছে থাকত। এরপর প্রতারক চক্রটি সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রির টাকা হাতিয়ে নিত অ্যাকাউন্ট থেকে। যদিও এসবের কিছুই জানা ছিল না কৃষকদের।

জালিয়াতি কাণ্ডের তদন্তে ব্যাংক, খাদ্যদপ্তর ও ধান বিক্রয় কেন্দ্রের কর্মীদের পাশাপাশি ধান কলের মালিকদের জালিয়াতি কাণ্ডের সাথে যুক্ত থাকার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। প্রাথমিকভাবে খবর, ধৃত মূল অভিযুক্ত মাধব সিংহ এলাকার সহস্রাধিক মানুষের আঁধার কার্ড, ভোটের ফটো ও প্যান কার্ড বুড়াগঞ্জের কিলাঘাটা বাজারের একটি নির্দিষ্ট দোকানে জেরক্স করত। জেরক্স দোকানদার নগেন্দার মাহাতোর সন্দেহ হলে তিনি প্রশ্ন করায় অভিযুক্ত মাধব জানায়, সম্প্রতি সে কৃষি দপ্তরে চাকরিতে যোগ দিয়েছে। গরিব মানুষের কৃষি ঋণের জন্য সে ডকুমেন্টগুলি জেরক্স করছে।

- Advertisement -

যদিও খড়িবাড়ি ব্লক কৃষি দপ্তরের সহ-কৃষি অধিকর্তা ঠাকুরদাস কার্জি জানান, অভিযুক্ত ব্যক্তি কৃষি দপ্তরের কর্মী নয়। খড়িবাড়ি ব্লকের অধীনস্থ ব্যাংকেই উপভোক্তাদের কৃষি ঋণের টাকা দেওয়া হয়। এছাড়া কৃষি ঋণের পদ্ধতিও আলাদা।