উদ্ধার অপহৃত পঞ্চায়েত সদস্যরা, ধৃত ৩

208

হরিশ্চন্দ্রপুর: মাঝরাতে অপহৃত ৯ পঞ্চায়েত সদস্যকে উদ্ধার করল হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ। একইসঙ্গে অপর গোষ্ঠীর তরফে অপহৃত প্রধান সহ মোট চারজন পঞ্চায়েত সদস্যকেও উদ্ধার করা হয়। রাতেই তাঁদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে খবর হরিশ্চন্দ্রপুর পুলিশ সূত্রে। অন্যদিকে অপহরণের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার ধৃতদের চাঁচল মহকুমা আদালতে পেশ করা হয়।

অভিযোগ, দৌলতনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলী প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনতে গিয়ে মঙ্গলবার হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লক অফিস থেকে ১২ জন বিক্ষুব্ধ সদস্যকে অপহরণ করা হয় শাসকদলের তরফে। পরে দুজনকে ছেড়ে দেওয়া হলেও বাকিদের আটকে রাখা হয় বলে খবর। ঘটনায় তদন্ত শুরু করে অপহৃতদের উদ্ধার করে পুলিশ।

- Advertisement -

ঘটনা প্রসঙ্গে অপহৃতদের তরফে পিন্টু কুমার যাদব জানান, অপহরণ করে ভয় দেখিয়ে দমিয়ে রাখা যাবে না। হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী আবার অনাস্থার জন্য ব্লক অফিসে আবেদন জানানো হবে। অন্যদিকে প্রধান নজিবুর রহমান বলেন, কে বা কারা তাঁদের অপহরণ করেছে তা জানা নেই। গতকাল সকালের ওই ঘটনার পর স্থানীয় কিছু ব্যক্তি আমার ব্যক্তিগত অফিসে হামলা চালায়। লাঠি-সোটা, বল্লম, বন্দুক নিয়ে আমাকে আক্রমণ করে। এরপরই আমাকে এবং আমার দুই ভাই সহ মোট চারজনকে অপহরণ করে তারা। বিষয়টি দলের জেলা ও ব্লক নেতৃত্বকে জানিয়েছি।’

জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো-অর্ডিনেটর দুলাল সরকার বলেন, ‘কোনও প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থার বিপক্ষে দল। তবে, কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে দল প্রধানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবে।’

হরিশ্চন্দ্রপুর-২ ব্লকের বিডিও বিজয় গিরি বলেন, ‘সরাসরি তলবি সভা ডাকা হবে।’

হরিশ্চন্দ্রপুরের আইসি সঞ্জয়কুমার দাস জানিয়েন, বিডিও অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখে অপহরণে অভিযুক্তদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।